জাতীয়

খুলে দেওয়া হলো বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানা

সাড়ে চার মাস বন্ধ থাকার পর অবশেষে দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানার দুয়ার। জাতীয় চিড়িয়াখানার পরিচালক আব্দুল লতিফ জানিয়েছেন, মাস্ক ছাড়া কেউ চিড়িয়াখানায় টিকিট কাটতে ও প্রবেশ করতে পারবেন না। দর্শনার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে পুরোপুরি। একই সাথে সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে চলতে হবে।

এর আগে ১৯ অগাস্ট থেকে কয়েকটি শর্তে পর্যটন ও বিনোদন কেন্দ্রগুলো খোলা হলেও কোভিড সংক্রমণ থেকে খাঁচাবন্দি প্রাণীদের রক্ষায় তখন চিড়িয়াখানা বন্ধ রাখা হয়। করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে প্রাণিদের জন্য নেয়া হয়েছে বাড়তি সতর্কতা। তাদের নিরাপত্তায় কতৃপক্ষের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় রয়েছেন কিছু সেচ্ছাসেবক।

এদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে চলতি বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতি মাসের প্রথম রোববার চিড়িয়াখানায় দর্শনার্থীরা বিনামূল্যে প্রবেশ করতে পারবে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রকোপ নতুন করে বাড়ার ফলে গত ২ এপ্রিল চিড়িয়াখানা বন্ধ ঘোষণা করেছিল মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়।

লকডাউন তুলে নেওয়ার এক সপ্তাহ পর ১৯ অগাস্ট থেকে স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্তে পর্যটন কেন্দ্র, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদন কেন্দ্রও খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানায় সরকার।

বৃহস্পতিবার মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় , শুক্রবার থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দর্শনার্থীরা মিরপুরের জাতীয় চিড়িয়াখানা ও রংপুর চিড়িয়াখানায় যেতে পারবেন।

চিড়িয়াখানা খোলা থাকবে সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button