আইন ও অপরাধ

সেফুদার সঙ্গে লেনদেন ছিল হেলেনা জাহাঙ্গীরের: র‌্যাব

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচিত অস্ট্রিয়া প্রবাসী সেফাতুল্লাহ ওরফে সেফুদার সঙ্গে আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য পদ হারানো হেলেনা জাহাঙ্গীরের লেনদেন ছিল বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

তিনি বলেন, আলোচিত সেফুদাকে নাতি ডাকতেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। সেফুদার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতেন তিনি। তার সঙ্গে অবৈধ লেনদেনও ছিল হেলেনা জাহাঙ্গীরের।

খন্দকার আল মঈন বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অশ্লীল শব্দ উচ্চারণ ও কুরুচিপূর্ণ বক্তব্যের মাধ্যমে আলোচনায় আসেন সেফুদা। তার সঙ্গে গ্রেফতারকৃতের নিয়মিত যোগাযোগ ও লেনদেন রয়েছে বলে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়।

তিনি বলেন, হেলেনা জাহাঙ্গীর একজন উচ্চাভিলাষী মহিলা। বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিদের সঙ্গে ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দিয়ে তিনি নিজের উদ্দেশ্য হাসিল করতো।

র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক বলেন, জয়যাত্রা ফাউন্ডেশনের নামে বিভিন্ন দেশি-বিদেশি সংস্থা ও ব্যক্তিবর্গ থেকে অর্থ আদায় করতেন হেলেনা। সেই অর্থ মানবিক সহায়তার চেয়ে গ্রেফতারকৃতের পেছনে বেশি ব্যবহার করা হতো।

তিনি বলেন, নিজেকে ‘মাদার তেরেসা’, ‘পল্লীমাতা’, ‘প্রবাসীমাতা’ হিসেবে পরিচিতি পেতে জয়যাত্রা ফাউন্ডেশনকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতেন হেলেনা জাহাঙ্গীর।

খন্দকার আল মঈন আরও বলেন, বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত থেকে নিজের বিভিন্ন এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতেন হেলেনা। তিনি ১২টি ক্লাবের সদস্যপদে রয়েছেন।

হেলেনা জাহাঙ্গীরের পৃষ্ঠপোষকতায় একটি সংঘবদ্ধ চক্র ভুয়া খেতাবের অপপ্রচার চালাত বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button