জাতীয়স্বাস্থ্য

বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্ত

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যে দেশে ডেঙ্গু পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। এ থেকে পরিত্রাণের জন্য ঘুমানের সময় মশারি টানানোর পরামর্শও দিয়েছে তারা।

রোববার (১৮ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতরের মুখপাত্র ও লাইন ডিরেক্টর অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম দুপুরে সারাদেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত বুলেটিনে এই আশঙ্কার কথা জানান।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, দেশে করোনা পরিস্থিতি এখন ঊর্ধ্বগামী। এমতাবস্থায় ডেঙ্গু পরিস্থিতির অবনতি হলে আমাদের পক্ষে সামাল দেয়া কঠিন হবে। আর মশক নিয়ন্ত্রণে রাজধানীসহ সারাদেশের যারা দায়িত্বপ্রাপ্ত, তারা যদি নিজেদের জায়গা থেকে নিজেকে উজাড় করে না দেন তাহলে পরিস্থিতির অবনতি ঘটতে থাকবে।

নাজমুল ইসলাম বলেন, ডেঙ্গু প্রতিরোধের জন্য সাধারণ মানুষকেও অনেক বেশি সচেতন হতে হবে। ছাদে ফুলের টব, বাসার আশপাশের ড্রেন, বাথরুমের কমোড, বালতিসহ পানি জমে থাকে এমন জায়গাতে যেন পানি জমে না থাকে। বিশেষ করে তিন দিন বা তার বেশি সময়ের জন্য কোথাও চলে গেলে বাসায় কোনও পাত্রে পানি জমিয়ে রাখা যাবে না।

তিনি আরও বলেন, আমরা জানি এডিস মশা মূলত দিনের বেলায় কামড় দেয়। তাই দিনের যেকোনো সময় ঘুমালেও মশারি টানিয়ে ঘুমাতে হবে। তারপরও যদি কারও জ্বর হয় তাহলে করোনার পাশাপাশি ডেঙ্গু পরীক্ষাও করতে হবে এবং চিকিৎসা নেয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই রেজিস্টার্ড কোনো চিকিৎসকের পরামর্শে ওষুধ গ্রহণ করতে হবে। প্রয়োজনে স্বাস্থ্য অধিদফতরের হট লাইন বা স্বাস্থ্য বাতায়ন যোগাযোগ করে চিকিৎসা নিতে হবে।

এর আগে গত শনিবার (১৭ জুলাই) তার আগের ২৪ ঘণ্টায় (১৬ জুলাই সকাল ৮টা থেকে ১৭ জুলাই সকাল ৮টা পর্যন্ত) ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ৮১ জন রোগী ভর্তি হন। তাদের মধ্যে ঢাকায় নতুন রোগী ছিল ৮০ জন এবং ঢাকার বাইরে নতুন রোগী ছিল ১ জন।

চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ১৭ জুলাই পর্যন্ত সর্বমোট ১ হাজার ১৩৯ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি এবং এই সময়ে সর্বমোট ৮০১ জন রোগী ছাড়প্রাপ্ত হয়েছেন। তবে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইইডিসিআর) ডেঙ্গু সন্দেহে ২টি মৃত্যুর তথ্য পাঠানো হলেও আইইডিসিআর মৃত্যুর পর্যালোচনা সমাপ্ত করে একটি ডেঙ্গুজনিত মৃত্যুও শনাক্ত করতে পারেনি।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button
ভাষা নির্বাচন