খেলাধুলাবগুড়া জেলা

বগুড়ায় কুমড়ার বীজে মেসিকে তুলে ধরলেন এক ভক্ত

আর্জেন্টাইন ফুটবল তারকা লিওনেল মেসির কোটি ভক্ত রয়েছে সারাবিশ্বসহ অগণিত ভক্ত রয়েছে লাল সবুজের বাংলাদেশে। বাংলাদেশের অগণিত মেসি ভক্তের একজন বগুড়ার চিত্রশিল্পী তরিকুল ইসলাম।

কোপা আমেরিকার ফাইনালে নেইমারের দল ফেবারিট ব্রাজিলের মুখোমুখি হবে মেসির আর্জেন্টিনা। কোপা আমেরিকা জয়ের নেশায় সারাবিশ্বের সকল ভক্তরা যখন বিচিত্র সব কর্মকাণ্ডে ব্যস্ত মেসিকে স্মরণীয় করে রাখতে। ঠিক তখন ভিন্নধর্মী ভাবনায় মেসিকে ভালবাসার বহিঃপ্রকাশ করলেন মেসি ভক্ত আর্জেন্টিনার সাপোর্টার চিত্রশিল্পী তরিকুল ইসলাম।

সবাই যখন বড় বড় ছবি এঁকে প্রিয় খেলোয়ার লিওনেল মেসিকে ভালোবাসার প্রকাশ করতে ব্যস্ত তখন তরিকুল ইসলাম আঁকলেন ক্ষুদ্র পরিসরে। দেশীয় মিষ্টি কুমড়ার বীজে আঁকলেন লিওনেল মেসিকে। ভাবনার অন্তরালে ছবি আকলেন ১ সেন্টিমিটারের একটু বড় আয়তনের কুমড়ার বীজে। মেসিকে দেখতে হলে কুমড়ো বীজে আতশ কাচ ধরতে হয়। কারণ এটির আয়তন মাত্র ১ সেন্টিমিটার একটু বড়।

চিত্রশিল্পী তরিকুল ইসলাম বলেন, সারাবিশ্বে মেসিকে ভালোবেসে তার ভক্তরা নানা ধরনের কর্মকাণ্ড করে থাকে। আমি সাধারণ একজন মানুষ। ছবি আঁকি। তাই সবাই যখন বৃহৎ পরিসরে মেসির ছবি আঁকছেন, নানান কিছু করছেন সাদা আকাশি রঙের প্রেমে। আমি তখন এসবের বিপরীতে থেকে একটু আলাদা কিছুর চিন্তা করতে থাকি। তখন মনে হয় সবাই যখন বৃহৎ কাজ করছে আমি ক্ষুদ্র কিছু করি। তাই সেই চিন্তা থেকে কুমড়ার বীজে টানা কয়েকদিন চেষ্টার পর প্রিয় ফুটবল তারকা, সাদা আকাশি দলের অধিনায়ককে ফুটিয়ে তুলতে সক্ষম হই। তারপর এক এক করে ৮টি বীজে ছবি আঁকি সাদা আকাশি জার্সি পরিহিত লিওনেল মেসির। ছবিগুলো খালি চোখে ভালোভাবে দেখা যায় না। তবে আতশ কাচে খুব ভালো করে দেখা যায়। ভালোবাসলে ক্ষুদ্র পরিসরেও তার প্রকাশ করা যায় এটি তার উদাহরণও বলতে পারেন।

তরিকুল আরও বলেন, ছোটবেলায় বাবা-মামাদের মুখে ম্যারাডোনা, পেলে, বাতিস্তুতা, রোনালদোর কথা শুনেছি। যখন বড় হতে শুরু করি তখন থেকেই গ্রামের মাঠে ফুটবল খেলে বড় হয়েছি। সেই তখন থেকে ফুটবল ঈশ্বরখ্যাত ম্যারাডোনার সাদা আকাশি রঙের জার্সির প্রেমে পড়ি। সারাবছর ক্লাব ফুটবল লীগের খেলা দেখা হয়। লিওনেল মেসিকে ভালো লাগে। মেসির খেলা ভালো লাগে বলেই স্পেনের ফুটবল ক্লাব বার্সেলোনাকে সাপোর্ট করি। মেসি ভালো করলে ভালো লাগে। মেসির জন্য শুভ কামনা জানাই।

এত দলের ভীড়ে মাত্র দুটি বিশ্বকাপ জয়ী আর্জেন্টিনা দলের সাপোর্টার হওয়ার কারণ জানতে চাইলে তরিকুল ইসলাম বলেন, আমি চিত্রশিল্পী আকাশের সাত রঙ নিয়ে পড়ে থাকি। তার মধ্যে সাদা আকাশি একটু বেশি টানে। দল কাপ জিতলেই তার সাপোর্ট করতে হবে এমন নয়। একজন খেলোয়ারের ভক্ত হতে আসলে তার ক্রীড়া নৈপুণ্যই আসল। ক্রীড়া নৈপুণ্যে যার যাকে ভালো লাগে সে তার ভক্ত হয়। আমার কাছে মেসিকে বিশ্বের সেরা খেলোয়ার মনে হয়। তার মতো শান্ত ও ভদ্র খেলোয়ার আমি দেখিনি। আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ ২ বার পেয়েছে। এতে আমার কোনো কিছু মনে হয় না। একটা দল ভালো খেলে বিশ্বকাপ জয় করে।

চিত্রশিল্পী তারিকুল ইসলাম বগুড়ার সরকারি আজিজুল হক কলেজের হিসাববিজ্ঞানের ছাত্র। পাশাপাশি বগুড়া আর্ট কলেজের বিএফ ডিগ্রিতে ড্রইং ও পেইন্টিং নিয়েও পড়াশোনা করছেন। জেলার ধুনটের নিমগাছি ইউনিয়নের বেড়ের বাড়ি গ্রামের ছেলে তারিকুল ইসলাম। বাবা কৃষক কাফি প্রামাণিক জমি বর্গা নিয়ে চাষাবাদ করেন। বগুড়া আর্ট কলেজে লেখাপড়ার পাশাপাশি চারু ও কারুকলা বিষয়ে তিনি খণ্ডকালীন শিক্ষকতা করছেন শহরের মাটিডালি উচ্চ বিদ্যালয়ে।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button