আইন ও অপরাধ

বগুড়ায় ১৭ টন সার উদ্ধারসহ ০৫ জনকে আটক করেছে র‍্যাব-১২

বগুড়ায় কালোবাজারির ৩৫০ বস্তা সারসহ ৫জনকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে কাহালু উপজেলার দুর্গাপুর এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- সারের ডিলার ও কালোবাজারির মূলহোতা বগুড়া নন্দীগ্রাম উপজেলার ভাটগ্রাম এলাকার আয়েত আলীর ছেলে রুহুল আমিন(৩৫) এবং আদমদীঘি উপজেলার সারের ডিলার সহযোগী সুদিন এলাকার মৃত শওকত আলীর ছেলে নওশাদ(৪৬), আদমদীঘি বাজার এলাকার মৃত ফজলুল হকের ছেলে এমদাদুল হক (৪৩), শালগ্রাম এলাকার খোরশেদ আলীর ছেলে ফজলুল হক (৫৫), ও আদমদীঘি বাজার এলাকার মৃত নাসিউল হকের ছেলে এহসানুল করীম (৪৭)। এসময় সার বহন করা একটি ট্রাক (বগুড়া-ট-১১-০৯২৩) জব্দ করে র‍্যাব। 

বগুড়া র‍্যাব-১২ এর কোম্পানী কমান্ডার (লেঃ কমান্ডার) আব্দুল্লাহ আল মামুন, (জি), বিএন জানান, বগুড়া জেলায় সারের চাহিদা বেশি থাকায় এক শ্রেণীর অসাধু ডিলার বেশি মুনাফার লোভে সরকারের ভর্তুকি দেওয়া সার কালোবাজারে বিক্রয় করছে এবং আদমদীঘি থেকে নন্দীগ্রাম অভিমুখে ট্রাক বোঝাই কালোবাজারির ৩৫০ বস্তা সার আসার খবরে কাহালুতে চেকপোস্ট বসানো হয়। শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে ৩৫০ বস্তা সারসহ একটি ট্রাক জব্দ এবং ৫জনকে গ্রেফতার করা হয়। ট্রাকটিতে টিএসপি ও এমওপির ৩৫০ বস্তা সার ছিল। 

আটককৃত ট্রাক

তিনি আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, উদ্ধারকৃত ১৭ টন সার আদমদীঘি উপজেলার বিভিন্ন ডিলারের নামে বরাদ্দ হয়েছিল। বরাদ্দকৃত সারগুলো নন্দীগ্রামের ডিলারের নিকট সান্তাহার বিএডিসি গোডাউন থেকে উত্তোলন করে বিক্রি করে দেয়। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে এলাকার কৃষকদের অনেক অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বগুড়া জেলার কাহালু থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button