সারাদেশ

একসঙ্গে ৫ সন্তানের জন্ম, বাঁচেনি কেউ

গাজীপুরে একটি প্রাইভেট হাসপাতালে একসঙ্গে পাঁচ সন্তানের জন্ম দিয়েছে এক প্রসূতি। এর মধ্যে তিনটি ছেলে ও দুটি মেয়ে। জন্মের কিছু সময় পরই অপরিণত নবজাতক একে একে মারা যায় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

বিজ্ঞাপন

সোমবার সন্ধ্যায় শ্রীপুর পৌর এলাকার মাওনা চৌরাস্তার মাদার্স কেয়ার অ্যান্ড জেনারেল হাসপাতালে ওই পাঁচ নবজাতকের জন্ম হয়।

এ পাঁচ সন্তানের মা বৃষ্টি আক্তার (২১) কাপাসিয়া উপজেলার নয়ানগর গ্রামের মোশাররফ হোসেনের স্ত্রী।

প্রসূতি বৃষ্টি আক্তার জানান, তার ব্যথা শুরু হয় গত রোববার রাত থেকে। সোমবার দুপুরে এ হাসপাতালের চিকিৎসক জহিরুন নেছা রেনুর তত্ত্বাবধানে ভর্তি হন তিনি। আগে আল্টাসনোগ্রামে তার গর্ভে তিনটি বাচ্চা সুস্থ থাকার কথা চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন।

হাসপাতালের চিকিৎসক আব্দুস সালাম তারেক জানান, ২০ সপ্তাহের গর্ভকালে পেটে ব্যথা নিয়ে দুপুরে হাসপাতালে আসেন প্রসূতি বৃষ্টি আক্তার।

আল্টাসনোগ্রাম করে গর্ভে পাঁচটি শিশুর অস্তিত্ব পাওয়া যায়। প্রসূতিকে নিরাপদ রাখতে হাসপাতালে সার্বক্ষণিক চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়।

সোমবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে সাড়ে ৬টার মধ্যে তিনি পাঁচটি নবজাতকের জন্ম দেন। জন্মের কিছু সময় পরই অপরিণত তিনটি ছেলে ও দুটি মেয়ে নবজাতক একে একে মারা যায়।

তবে বর্তমানে ওই হাসপাতালের চিকিৎসাধীন বৃষ্টি শঙ্কা মুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button