খেলাধুলা

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে সবচেয়ে কমবয়সী খেলোয়ার বাংলাদেশের রিমন

আসন্ন ২০২২ ফুটবল বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব শুরু হয়ে গেছে পূর্ণগতিতে। কাতারে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া আসন্ন বিশ্বকাপের মূলপর্বে খেলতে ইতোমধ্যে বাংলাদেশসহ বিশ্ব ফুটবলের নামকরা সব দল বাছাইপর্বে খেলা শুরু করেছে।

বিজ্ঞাপন

গত ম্যাচে আফগানিস্তানের সাথে ১-১ গোলে ড্র করেছে বাংলাদেশের টাইগাররা। সামনের ম্যাচে প্রতিপক্ষ হিসেবে পাচ্ছে ভারতকে। এবারের বাচাহাইপর্বে বাংলাদেশ দলে ডিফেন্ডার হিসেবে খেলছেন ১৬ বছর বয়সী রিমন হোসেন। গত ম্যাচের ৮০ মিনিটে রহমত মিয়ার পরিবর্তে তাকে মাঠে নামিয়েছিলেন কোচ জেমি ডে। সোমবার (০৬ জুন) সুনীল ছেত্রীর দলের বিপক্ষে রিমনকে আবার মাঠে নামাবেন কোচ জেমি ডে।

জানা যায়, এবারের বিশ্বকাপ ও এশিয়া অঞ্চলে অংশ নেওয়া দলগুলোর মধ্যে রিমনের বয়সই সবচেয় কম। বসুন্ধরা কিংসের লেফটব্যাক হিসেবে খেলা রিমন ১৬ বছর বয়সে কনিষ্ঠ ফুটবলার হিসাবে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের জন্য জাতীয় দলে জায়গা পেয়েছেন।

এ বিষয়ে রিমন বলেন, এত অল্প বয়সে জাতীয় দলে খেলছি, এটা আমার জন্য বড় পাওয়া। আমি যেন নিজের পারফরম্যান্সটা ধরে রাখতে পারি এবং দীর্ঘদিন জাতীয় দলে খেলতে পারি। সেই চেষ্টা করব। সেরা পারফরম্যান্স দেখাতে চাই আমি। তার সঙ্গে নিজের জায়গাটাও ধরে রাখতে চাই। সবাই আমার ও আমাদের দলের জন্য দোয়া করবেন।

২০১৫ সালে ক্লাব ফুটবলে খেলা শুরু করেন রিমন। শামসুল হুদা অ্যাকাডেমির প্রধান কোচ কাজী মারুফের মাধ্যমে অ্যাকাডেমিতে এসেছেন তিনি। নেপালের মাঠে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টের জন্য ঘোষণা করা জাতীয় দলের স্কোয়াডে ছিলেন বসুন্ধরা কিংসের এই ডিফেন্ডার।

গত মার্চে এক গণমাধ্যমে কাজী মারুফ বলেছিলেন, ‘রিমনকে তিনি নওগাঁ থেকে নিয়ে আসেন। জেলা দলের তৎকালীন খেলোয়াড় ছিলেন আরিফ। তার মাধ্যমে জানতে পারেন ক্লাস সিক্সে পড়া রিমনের কথা। বয়সের তুলনায় রিমনের শারীরিক গড়ন বেশ সুঠাম। বিষয়টি তার নজরে আসে। এরপর এক সপ্তাহের ক্যাম্পে সুযোগ করে দেন ওকে। এর পর প্রতিভার গুণেই রিমন অ্যাকাডেমিতে ঠাঁই করে নেয়।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button