চিকিৎসা সংক্রান্ত

চিকিৎসা ও সেবার ক্ষেত্রে গাক চক্ষু হাসপাতাল বিশ্বমানের-মেয়র লিটন

বগুড়ায় গ্রাম উন্নয়ন কর্ম (গাক) পরিচালিত চক্ষু হাসপাতালের চিকিৎসাসেবা বিশ্বমানের বলে উল্লেখ করেছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে বগুড়া গাক চক্ষু হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে মতবিনিময় সভায় তিনি আরও বলেন, হাসপাতালটির কার্যক্রম আমাদের মুগ্ধ করেছে এটির চিকিৎসা সেবার মান যেমন উন্নত তেমনি সচ্ছল মানুষদের পাশাপাশি দরিদ্রদের জন্য বিনামূল্যে সেবা পাওয়ার যে সুবিধা রেখেছে সেটা সত্যিই প্রশংসনীয় । রাসিক মেয়র রাজশাহীতেও এমন একটি হাসপাতাল গড়ে তোলার ব্যাপারে সম্মত হওয়ায় গাক কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, রাজশাহী বিভাগের জেলাগুলো থেকে প্রতিবছর প্রায় ৩ লাখ মানুষ চোখসহ নানা রোগের চিকিৎসার জন্য ভারতে যায়। এতে বিপুল বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয় হয়। তবে গাকের মত এধরনের আধুনিক চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে পারলে কষ্টার্জিত বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় করা সম্ভব হবে । মেয়র লিটন গাকের অন্যান্য কার্যক্রমেরও প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, দৃষ্টিনন্দন ভবনই বলে দেয় গাক তার কাজের ক্ষেত্রে কতটা রুচিশীল । গাক টাওয়ারে সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক ড. খন্দকার আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে

অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় অন্যানের মধ্যে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান ও অধ্যাপক ড. সাইদুজ্জামান, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিন, বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসাদুর রহমান দুলু ও গাবতলী উপজেলা চেয়ারম্যান রফি নেওয়াজ খান রবিন বক্তৃতা করেন ।

গাক এর সিনিয়র পরিচালক ড. মাহবুব আলম পুরো অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন। সমাপনী বক্তৃতায় গাকের নির্বাহী পরিচালক ড. খন্দকার আলমগীর হোসেন সংস্থার বিভিন্ন কার্যক্রমের বর্ণনা করেন । তিনি জানান, গাক টাওয়ারের পাশেই তাদের বিশেষায়িত একটি হাসপাতাল নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে । এজন্য তিনি বগুড়াবাসীর সহযোগিতা চান।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button