বগুড়া জেলা

উত্তরবঙ্গের গর্ব জামিল মাদরাসা

দেশের উত্তরাঞ্চলীয় জেলা বগুড়া সদরে অবস্থিত ‘আল-জামিআতুল ইসলামিয়া কাসিমুল উলুম’ বিংশ শতাব্দীর মধ্যভাগে প্রতিষ্ঠিত একটি ঐতিহ্যবাহী ইসলামী বিদ্যাপীঠ এবং গোটা উত্তরবঙ্গের বৃহত্তম ইসলামী জ্ঞানচর্চার অন্যতম কেন্দ্র। বগুড়ার পুলিশ লাইনস সংলগ্ন পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের উত্তর-পশ্চিম পাশে প্রায় ৪০ বিঘা জমির ওপর ১৯৬০ সালে পটিয়া মাদরাসার তৎকালীন মুহতামিম মুফতি আজিজুল হক (রহ.)-এর পরামর্শে মাদরাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন জেলার বিত্তশালী আলেম মাওলানা সুহাইল উদ্দিন কাসেমী। তিনি ছিলেন বগুড়ার সে সময়ের স্বনামধন্য শিল্পপ্রতিষ্ঠান জামিল গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের স্বত্বাধিকারী আবদুল গফুরের বড় ছেলে। মূলত বাবার নির্দেশেই তিনি এটি প্রতিষ্ঠা করেন। জামিল গ্রুপের সংশ্লিষ্টতা থেকেই প্রতিষ্ঠানটি সারা দেশে ‘জামিল মাদরাসা’ নামে পরিচিত।

বিজ্ঞাপন

প্রাথমিক স্তর থেকে শুরু হওয়া প্রতিষ্ঠানটি খুব অল্পদিনেই পড়াশোনা ও পারিপার্শ্বিক বিষয়ে অবদান রেখে গোটা উত্তরবঙ্গে আলোড়ন সৃষ্টি করে এবং মাত্র ছয় বছরের মাথায় ১৯৬৭ সালে এখানে কওমি মাদরাসার সর্বোচ্চ শ্রেণি দাওরায়ে হাদিস (মাস্টার্স সমমান) খোলা হয়। বর্তমানে এখানে তাফসির, আরবি সাহিত্য, তাজবিদ ও ইফতা (ইসলামী আইন গবেষণা) বিভাগ রয়েছে।

আল-জামিআতুল ইসলামিয়া কাসিমুল উলুমের বর্তমান অধ্যক্ষ মাওলানা আরশাদ রাহমানি বলেন, সদ্য শেষ হওয়া শিক্ষাবর্ষে মাদরাসায় বিভিন্ন বিভাগে অন্তত তিন হাজার শিক্ষার্থী পড়াশোনা করেছে। তাদের শিক্ষাদানের জন্য নিয়োজিত আছেন ৮৪ জন অভিজ্ঞ শিক্ষক। তানজিমুল মাদারিসিদ দ্বিনিয়া শিক্ষা বোর্ডের অধীনে পরিচালিত এই মাদরাসায় ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দের শিক্ষা কারিকুলাম অনুসারে ইসলামী শিক্ষা প্রদান করা হয়। মাতৃভাষা বাংলা ছাড়াও এখানকার শিক্ষার্থীরা আরবি, উর্দু, ইংরেজি ও ফারসি ভাষা শেখার সুযোগ পায়। তা ছাড়া এখানে আবাসিক ব্যবস্থাপনায় এতিম ও দরিদ্রদের শিক্ষাগ্রহণের বিশেষ সুবিধা আছে। এই মাদরাসা থেকে প্রতিবছরই উল্লেখযোগ্যসংখ্যক শিক্ষার্থী পড়াশোনা শেষ করে উত্তরবঙ্গসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মাদরাসা-মসজিদে দ্বিনের খিদমত আঞ্জাম দিচ্ছে। একই সঙ্গে এ এলাকার বহু মাদরাসা প্রতিষ্ঠার পেছনে জামিল মাদরাসার প্রাক্তন ছাত্রদের অশেষ অবদান রয়েছে। সামাজিক সেবামূলক কাজেও মাদরাসা কর্তৃপক্ষ অংশগ্রহণ করে থাকে। তানজিমুল মাদারিসিদ দ্বিনিয়া শিক্ষা বোর্ডের প্রধান কার্যালয় এ মাদরাসাতেই অবস্থিত। বোর্ডটি প্রতিষ্ঠা করেন রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক প্রকল্পে অবস্থিত ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ও আল-জামিআতুল ইসলামিয়া কাসিমুল উলুমের সাবেক অধ্যক্ষ মুফতি আব্দুর রহমান (রহ.)। বর্তমানে বোর্ডের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন তাঁর বড় ছেলে আল্লামা আরশাদ রাহমানি। ১৯৯৫ সালে প্রতিষ্ঠিত এই শিক্ষা বোর্ডের অধীনে সারা দেশে প্রায় তিন হাজার মাদরাসা রয়েছে।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button