আন্তর্জাতিক খবর

ভারতে ইয়াসের তাণ্ডবে ৩ লাখ বাড়িঘর বিধ্বস্ত

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের তাণ্ডবে ভারতের ওড়িশা ও পশ্চিমবঙ্গে অন্তত তিন লাখ বাড়িঘর বিধ্বস্ত হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বুধবার আঘাত হানা ইয়াসের প্রভাবে ওড়িশা ও পশ্চিমবঙ্গে অন্তত ৩ লাখ বাড়িঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৫ জনের মৃত্যুর খবর জানা গেছে। ঘূর্ণিঝড় ইয়াস বুধবার রাতেই শক্তি হারিয়ে নিম্নচাপে পরিণত হয়। আগামী ১২ ঘণ্টায় ঝড়টি আরও দুর্বল হয়ে উত্তর পশ্চিমদিকে অগ্রসর হবে। তবে, উত্তাল রয়েছে সাগর।

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড হয়েছে ওড়িশার জগৎসিংহপুর, কেন্দ্রপাড়া, ভদ্রক ও বালাশোর জেলা। ভেঙে পড়েছে বাড়িঘর, গাছপালা বিদ্যুতে খুঁটি। ওড়িশায় অন্তত ১২০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত ১২৮ গ্রামে ৭ দিন ত্রাণ সরবরাহ করার ঘোষণা দিয়েছে ওড়িশার রাজ্য সরকার। এখনো অনেক এলাকায় পৌঁছায়নি উদ্ধারকর্মী।

পশ্চিমবঙ্গের পশ্চিম মেদেনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা ও কলকাতায় তাণ্ডব চালিয়েছে ইয়াস। জলোচ্ছ্বাসে ডুবেছে সৈকত শহর দীঘা। এ রাজ্যেই ১১০০ গ্রাম জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছেন, তার রাজ্যের নিচু এলাকায় অন্তত ৩ লাখ কাঁচা ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সাগরের লোনা জলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিস্তীর্ণ ফসলের ক্ষেত। পশ্চিমবঙ্গেই এক কোটির মত মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এদিকে মাহমারির মধ্যেই ঘূর্ণিঘড়ে বিধ্বস্ত এলাকাগুলোতে ব্যাহত হচ্ছে করোনা টিকাদান কর্মসূচী। এ সময়ের মধ্যে করোনা পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ আকার ধারন করতে পারে বলে শঙ্কা স্থানীয়দের।

নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী টিকা নিতে আসা ব্যক্তিরা জানান, তারা করোনার ভ্যাকসিন নিতে এসেছিলেন কিন্তু ঘূর্ণিঝড়ের কারণে তিন দিন টিকাদান কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়েছে।

ভারতের আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বৃহস্পতিবারও পশ্চিমবঙ্গের হুগলি, উত্তর ও দক্ষিণ পরগোনা বিরভূমসহ কয়েকটি এলাকায় বজ্রসহ বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button