আবহাওয়া

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় “ইয়াস’, দুই নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত

পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি ধীরে ধীরে উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর ও ঘনীভূত হয়ে ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’-এ পরিণত হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। সেই সাথে বাড়ছে বাতাসের গতিবেগ। 

বিজ্ঞাপন

এ পরিস্থিতিতে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে দুই নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। 

সোমবার (২৪ মে) সকালে আবহাওয়া অধিদপ্তরের এক বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। 

এ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঘূর্ণিঝড়টি সকাল ৬টায় চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ৬৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে, কক্সবাজার থেকে ৬০৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে এবং মোংলা থেকে ৬৫০ কিলোমিটার দক্ষিণে ও পায়রা বন্দর থেকে ৬০৫ কিলোমিটার দূরে দক্ষিণে অবস্থান করছিল। তবে এটি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। 

ঘূর্ণিঝড়টির কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার এবং এই গতিবেগ দমকা বা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ঘণ্টায় ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়ছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। 

ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থেকে সাবধানে থেকে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেইসাথে তাদেরকে গভীর সাগরে চলাচল না করার পরামর্শ দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।  

এছাড়া, বিভিন্ন উপকূলীয় জেলা-উপজেলায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে স্থানীয় প্রশাসন। সে লক্ষ্যে প্রতি জেলায় ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রতিটি আশ্রয় কেন্দ্রে আলো ও শুকনো খাবারের ব্যবস্থা নিশ্চিত করতেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button