বগুড়া জেলা

মিশুকের আত্নার মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ,দোয়া মাহফিল ও শোকসভা

বগুড়ায় বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবি পরিষদ জেলা শাখার আয়োজনে সদ্যপ্রয়াত তরুণ আইনজীবী এ্যাডভোকেট মুশফিকুর রহমান মিশুক’র আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ,দোয়া মাহফিল ও শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আজ দুপুরে গওহর আলী ভবনে বাদ যোহর ২য় তলায় উক্ত মিলাদ, দোয়া মাহফিল এবং শোকসভায় উপস্থিত ছিলেন, জেলা জজ কোর্টের পিপি আলহাজ্ব এ্যাডভোকেট মোঃ আব্দুল মতিন,শিশু আদালতের পিপি এ্যাড আমানুল্লাহ আমান,নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল ২ এর পিপি এ্যাড আশেকুর রহমান সুজন,এডিশনাল পিপি এ্যাড আনোয়ার হোাসেন পায়েল,এ্যাড এরফানুল মাহফুজ সহ আরো অনেকে।

এ সময় উক্ত কার্যক্রমে উপস্থিত সকলে মিলে মিশুককে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করার জন্য আল্লাহর কাছে দুহাত তুলে দোয়া করেন।

প্রসঙ্গত,গত ১৪ই মে ঈদের রাতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত তরুণ আইনজীবী মুশফিকুর রহমান মিশুক রাজধানীর সেন্ট্রাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৬ই মে রোজ রবিবার বিকেল ৫টায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

এর আগে, ১৪ই মে শুক্রবার ঈদের রাত সাড়ে ৮টার দিকে শহরের কলোনীর তাজমা সিরামিক কোম্পানি এলাকায় দুই মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে মুশফিকুর গুরুতর আহত হন। মুশফিকুর রহমান মিশুক শহরের ঠনঠনিয়া দক্ষিণ পাড়ার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে এবং বগুড়া জজ কোর্টের তরুণ আইনজীবী ছিলেন।

তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছিলেন হাসপাতালে অবস্থানরত তার বন্ধু শাফিনুর তান্নি। তিনি জানান, গত শনিবার এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে বগুড়া থেকে ঢাকার সেন্ট্রাল হাসপাতালে নিয়ে আসা হয় মুশফিককে। দুর্ঘটনায় তার মস্তিষ্কে গুরুতর আঘাত লেগে ছিল ফলে তাকে আইসিইউতে রাখা হয়। কিন্তু তার শারিরীক অবস্থা বেশি খারাপ থাকায় চিকিৎসকরা অপারেশন করতে পারছিলেন না। পরে আজ বিকেলে মুশফিক চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।


পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার রাতের দিকে মুশফিক সাথে এক সঙ্গীকে নিয়ে মোটর সাইকেলে করে যাচ্ছিলেন। এ সময় রাস্তার উল্টো পাশ দিয়ে আরও একটি মোটর সাইকেল আসলে নিয়ন্ত্রণ করতে না পারায় মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।


মেডিকেল ফাঁড়ির টিএসআই লালন জানান, এ দুর্ঘটনায় মিশুকের সঙ্গী সাদ্দাম এবং অপর মোটর সাইকেলের চালক বান্না আহত হন। তবে তারা গুরুতর আহত না হওয়ায় চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছেন।


প্রয়াত তরুণ আইনজীবী মুশফিকুর রহমান মিশুক বগুড়া জিলা স্কুলের এসএসসি ২০০৭ ব্যাচের শিক্ষার্থী।
তার মৃত্যু বগুড়া জিলা স্কুলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button