আন্তর্জাতিক খবর

আফগানিস্তানে স্কুলে জঙ্গি হামলায় নিহত বেড়ে ৬৮, বেশিরভাগই স্কুলছাত্রী

আফগানিস্তানের স্কুলের বাইরে বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৮ জনে দাঁড়িয়েছে। ঘটনায় আহত হয়েছে ১৬৫ জন। এখনো নিহতদের মধ্যে সকলের পরিচয় নিশ্চিত করা যায়নি। রাজধানী কাবুল থেকে কাছেই দাশত-ই-বার্চি এলাকায় শনিবার সন্ধ্যায় এই বিস্ফোরণ ঘটে। ধারণা করা হচ্ছে, সেখানে থাকা শিয়া সম্প্রদায়কে টার্গেট করেই এই হামলা পরিচালনা করা হয়েছে। প্রায়ই তালেবান ও ইসলামিক স্টেটের হামলার শিকার হন আফগান শিয়ারা। ধারণা করা হচ্ছে, এ সংগঠনগুলোর একটিই এই হামলার পেছনে রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

রয়টার্সের খবরে জানানো হয়েছে, সায়িদ আল-শুহাদা স্কুলের সামনে প্রথমে একটি গাড়ি বিস্ফোরিত হয়। এরপর শিক্ষার্থীরা স্কুল থেকে বেড়িয়ে আসলে আরো দুটো বোমা বিস্ফোরণ ঘটানো হয় সেখানে। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নিহতদের বেশিরভাগই স্কুলের ছাত্রী। এখনো নিখোঁজ রয়েছেন অনেক শিক্ষার্থী। হাসপাতালে অনেক পরিবারকে দেখা যায় নিজের সন্তানের খোঁজ নিচ্ছেন। আফগান কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, প্রথম বিস্ফোরণটি এতোটাই শক্তিশালী ছিল যে অনেকের মরদেহ হয়তো আর খুঁজে পাওয়া যাবে না।
উগ্র, সাম্প্রদায়িক, নাশকতারী জঙ্গি সন্ত্রাসী গ্রুপ সমাজ, দেশ, জাতি, ধর্ম তথা মানবতার শত্রু। এই কাপুরুষোচিত হামলায় জড়িত জঘণ্য, ঘৃণ্য এবং নৃশংস নরপশু সন্ত্রাসী জঙ্গিদের নিন্দা জানানোর ভাষা আমার জানা নাই। আসুন পৃথিবীর সকল শান্তিকামী মানুষ মিলে এই এই উগ্র সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে প্রতিরোধ এবং প্রতিহত করি। হে আল্লাহ পবিত্র রমজান মাসে জঙ্গি হামলায় নিহত সকলকে জান্নাতবাসী করুন এবং আহতদের দ্রুত সুস্থ্য করে দিন। আমীন।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button