বগুড়া জেলা

প্রধানমন্ত্রী’র নির্দেশনায় কৃষকের ধান কেটে দিল ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা

চলমান লকডাউনে শ্রমিক সংকট ও অর্থনৈতিক সংকটে যখন কৃষক ধান কাটতে পারছিল না তখন পাশে দাঁড়ালো ছাত্রলীগ।
শুক্রবার বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সজীব সাহার নেতৃত্বে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কৃষক সবুজ মিয়ার ধান কেটে দেন। সকাল ১০ টায় বগুড়া শহর থেকে ১৪ কিলোমিটার দূরে বগুড়া সদর উপজেলার শেখেরকোলা ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী নরুইল বিলের পাশে কৃষক সবুজ মিয়ার ৩১ শতক জমির পাকা ধান কেটে বাড়িতে পৌঁছে দেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বিজ্ঞাপন

ধান কাটা কর্মসূচিতে অংশ নেন বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের সহ -সম্পাদক নুর আলম,সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আব্দুর রউফ সুইট,জেলা ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল মোমিন,আরিফুর ইসলাম,মোহন ইসলাম,সামিউল হক,সাগর ইসলাম,আবু সাঈদ,বাধন ইসলাম,সবুজ হাসান,রকি চৌধুরী,সুজন রায়,মাসুদ রানা,রাজু আহম্মেদ,ফজলে রাব্বি,শয়ন,ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা নাফিউল ইসলাম,নাবিল মাহমুদ,রাফিউল ইসলাম,সাকিব হাসান,মাসুদ রানা,সাদিক হাসান প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন


জেলা ছাত্রলীগের গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সজীব সাহা জানান,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন কৃষকের ধান কেটে দেয়ার জন্য। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান মজনু,বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য এর তত্ত্বাবধানে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গরীব কৃষক খুঁজে তাদের ধান কেটে দিচ্ছেন। বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া ছাত্রলীগ সব সময় মানবিক কাজে এগিয়ে রয়েছে। আমরা প্রায় ২৫ -৩০ জন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করে কৃষকের পাকা ধান কেটে ঘরে তুলে দিয়েছি। এছাড়াও করোনার দুর্দিনে অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর লক্ষ্যে বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী সহায়তা,মাস্ক বিতরণ,সেহেরি বিতরণ,ইফতার বিতরণ করার চেষ্টা করেছি।যে কোন বিপদে পাশে থেকে কাজ করতে ছাত্রলীগ সবসময় প্রস্তুত।


কৃষক সবুজ মিয়া বলেন,ক্ষেতের ধান পাকছে কিন্তু কাটার জন্য বিপদে ছিলাম। খবরে দেখলাম, বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা ধান কেটে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন, আজ ছাত্রলীগের ছেলেগুলো আমার ধান কেটে দিচ্ছে। এটা আমার কাছে অনেক খুশির ব্যাপার। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানাই।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button