অর্থ ও বানিজ্য

দামের ওঠানামায় অস্থির সোনা-রুপার বাজার

করোনাভাইরাসের কারণে গত বছরের জুলাই থেকে বিশ্ববাজারে রেকর্ড ভেঙে বাড়তে থাকে সোনার দাম। এরপর করোনাভাইরাসের টিকা আবিষ্কার ও প্রয়োগ শুরু হলে দাপট হারাতে থাকে সোনা। সোনার বাজারের হালনাগাদ তথ্য দেয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর তথ্যে দেখা যাচ্ছে, গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই এখাতে বিনিয়োগ বাড়া-কমায় দামেও বেশ ওঠানামার মধ্যে রয়েছে ধাতুটি। সোনার সঙ্গে বেশ অস্থির রুপাও।

গোল্ডপ্রাইসের তথ্য, সোমবার (২২ মার্চ) বাংলাদেশ সময় সকাল ৮টার দিকে বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স সোনা বিক্রি হয় ১৭৩৩.৬৩ ডলার মূল্যে। এই দাম আগের কার্যদিবসের চেয়ে ১১.৩৬ ডলার কম। আবার ১৮ মার্চের তুলনায় ১৯ মার্চ প্রতি আউন্স সোনার দাম বেড়েছিল ৭.৭৩ ডলার। অবশ্য এর আগের কার্যদিবস অর্থাৎ ১৮ মার্চে বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স সোনার দাম কমে ১১.৩৯ ডলার।

সোমবারের (২২ মার্চ) তথ্য, গত ৩০ দিনে প্রতি আউন্স সোনার দাম কমেছে ৩.৬৩ শতাংশ আর ৬ মাসে কমেছে ৮.১৭ শতাংশ। তবে এক বছর আগের তুলনায় সোমবারে (২২ মার্চ) বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স সোনার দাম ১১.৩৮ শতাংশ বেশি রয়েছে।

এদিকে সোমবার সকালে বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স রুপা বিক্রি হতে দেখা গেছে ২৫.৭২ ডলারে। যা আগের কার্যদিবসের চেয়ে প্রায় ২ শতাংশ (১.৯৭) কম। ১৯ মার্চ বাজারে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দেখালেও এর আগের দিন কদর হারিয়েছিল রুপা।

এক মাসের আগের তুলনায় আন্তর্জাতিক বাজারে ধাতুটির দাম কমেছে ৭.০৩ শতাংশ। তবে, ৬ মাসের আগের তুলনায় এখনও ৭.৭৫ শতাংশ বেশি রয়েছে রুপার দাম। আর এক বছর আগের তুলনায় এই বৃদ্ধি হয়েছে প্রায় একশ’ শতাংশ (৯৮.৪২)।

বাজারে দাম পড়তির মুখে রয়েছে সাদা ধাতু প্লাটিনাম, প্যালাডিয়ামও।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button