জাতীয়

দীর্ঘ হচ্ছে নমুনা পরীক্ষার লাইন, করোনা নিয়ন্ত্রণে এখনই কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হবে

আবারও দীর্ঘ হচ্ছে নমুনা পরীক্ষার লাইন। নতুন স্টেইন কিংবা আবহাওয়া নয়, অসচেতনতায় আবারও হু হু করে বাড়ছে করোনা। এখনই ‘নো মাস্ক, নো মুভমেন্ট’ চালুর তাগিদ বিশেষজ্ঞদের। নয়তো আবারও লকডাউনের মতো কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়ার প্রয়োজন হতে পারে বলে মনে করছেন তারা।

বিজ্ঞাপন

একটু পেছনের দিকে তাকানো যাক। গত বছরের ২ জুলাই ২০২০ পরিসংখ্যান বলছে, একদিনে সর্বোচ্চ চার হাজার ১৯ জন সনাক্ত হয় বাংলাদেশে। পরের গল্পটা স্বস্তির। ধীরে ধীরে নিচের দিকে নামতে থাকে আক্রান্তের সংখ্যা। যদিও আগষ্টের দ্বিতীয় সপ্তাহে আর নভেম্বরের শেষ থেকে ডিসেম্বরের শুরুতে কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী হলেও ক্রমেই তা বশে আসতে থাকে। তবে চলতি মাসের শুরু থকে প্রতিদিনই শনাক্তের হার আগের দিনের রেকর্ড ছড়াচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

পহেলা মার্চ দেশে কোভিড উনিশ শনাক্ত হয়েছিল ৪২৮ জনের দেহে। ১০ মার্চ তা হাজার ছাড়ায়, সবশেষ বুধবার এই সংখ্যা দুই হাজার ছাড়ায়। সপ্তাহে গড় আক্রান্ত প্রায় ১৪শ।

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. বে-নজির আহমেদ বলেন, করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে মাস্ক ব্যবহার, হাত ধোঁয়া, আর রাজনৈতিক ও সামাজিক অনুষ্ঠানে বিধি নিষেধ মেনে চলতে হবে। পাশাপাশি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এখনই সরকারের কঠিন কিছু সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

দেশে এ পর্যন্ত করোনায় সাড়ে ৫ লাখের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। আর মৃতের সংখ্য ছাড়িয়েছে আট হাজার।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button