আন্তর্জাতিক খবর

যৌন নির্যাতনের বিচার চেয়ে অস্ট্রেলিয়ার রাস্তায় লাখো মানুষ ঢল

যৌন নির্যাতন ও নারীর প্রতি সহিংসতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভে উত্তাল অস্ট্রেলিয়া। সোমবার (১৫ মার্চ) অস্ট্রেলিয়ার রাজপথে লাখো মানুষের ঢল নামে নারীর প্রতি সহিংসতার বিরুদ্ধে। নারীদের শক্তির জানান জানান দেন তারা। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার এটর্নি জেনারেল ও সরকারের কয়েকজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ নিয়ে তোলপার শুরু হয় দেশজুড়ে। প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে এসেছেন দেশটির লাখ লাখ নারী। আন্দোলনকারীরা বলছেন, যৌন নির্যাতন রোধে যথেষ্ট ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হয়েছে সরকার।

বিজ্ঞাপন

বিবিসি অনলাইন জানায়, ১৯৮৮ সালের একটি ধর্ষণের ঘটনায় অ্যাটর্নি জেনারেল ক্রিশ্চিয়ান পোর্টারের নাম ওঠে আসে, যদিও তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেন। আরেকটি ঘটনাও প্রকাশ্যে আসে। সাবেক-রাজনৈতিক পরামর্শক ব্রিটনি হিগিনস অভিযোগ করেন, ২০১৯ সালে সহকর্মীর হাতে এক মন্ত্রীর অফিসে তিনি ধর্ষণের শিকার হন। যা নাগরিকদের বিক্ষুব্ধ করে তোলে। আন্দোলনকারীদের মতে, যৌন নির্যাতনের অভিযোগ নিয়ে সরকারের যা পদক্ষেপ নিয়েছে তা যথেষ্ট নয়।

বিজ্ঞাপন

সোমবার( ১৫ মার্চ) সংসদ ভবনের বাইরে বিক্ষোভে যোগ দেন ব্রিটনি হিগিনস। তার বক্তব্য, অস্ট্রেলিয়ার নারীরা দেখছেন যৌন সহিংসতার ঘটনাগুলো কীভাবে সামাজিকভাবে মেনে নেওয়া হচ্ছে। নিজের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে জানান, সংসদে যদি এ ঘটনা ঘটে, তাহলে এমন কিছু যে কোনো জায়গায় ঘটতে পারে।

‘মার্চ ফর জাস্টিস’ নামে সংগঠিত এ বিক্ষোভে সারাদেশের ৪০টি নগরের অধিবাসীরা যোগ দিয়েছে। এর মধ্যে আছে ক্যানবেরা, সিডনি ও মেলবোর্নের মতো বড় শহরগুলো। সংগঠকদের অনুমান, এযাবৎকালের অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় নারী আন্দোলনের ঘটনা এটি।

এদিকে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে দেখার করার আহ্বান প্রত্যাখ্যান করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। রোববার( ১৪ মার্চ) সংসদ ভবনে বিক্ষোভকারীদের প্রতিনিধি দলকে আমন্ত্রণ জানালেও তা নাকচ করে দেন আন্দোলনকারীরা। বিক্ষোভকারীদের দাবি , প্রধানমন্ত্রী ও নারী বিষয়ক মন্ত্রীকে তাদের র‌্যালিতে এসে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে হবে।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button