আন্তর্জাতিক খবর

৬৬ জন নারীকে ধর্ষণের পর ধরা পড়লো ডেলিভারি বয়

এক ডেলিভারি বয় কৌশলে একে একে ধর্ষণ করলো ৬৬ নারীকে। অনলাইনে নারী ক্রেতাদের ‌‘ফিডব্যাক’ নেওয়ার নামে প্রথমে ফোন নম্বর জোগাড়। পরে ভাব জমাতো তাদের সঙ্গে। ভিডিও কল করে বিভিন্ন মুহূর্তের ছবির স্ক্রিনশট জমিয়ে রাখা। সুযোগ বুঝে সেসব ছবি দেখিয়ে ধর্ষণ। এমন ফাঁদ পেতে ৬৬ নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে পশ্চিমবঙ্গের এক ডেলিভারি বয়কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

কলকাতার সংবাদমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে যে, ধর্ষণের ঘটনায় ওই ডেলিভারি বয় ছাড়াও তার এক সহযোগীকে পশ্চিমবঙ্গের হুগলি থেকে গত শনিবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রোববার আদালতে তোলা হলে বিচারক দুই অভিযুক্তকে পাঁচ দিন পুলিশের হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।

হুগলির কেওটার বাসিন্দা বিশাল বর্মা পেশায় একটি অনলাইন বিপণির ডেলিভারি বয়। ধর্ষণের এমন চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধেই।

বিশাল বর্মা নারী ক্রেতাদের এভাবে ব্ল্যাকমেইল করে ধর্ষণ করত বলে অভিযোগ। চুঁচুড়ার এক গৃহবধূর অভিযোগের ভিত্তিতে সম্প্রতি এই ঘটনা জানতে পারে পুলিশ

ওই নারীর অভিযোগ, এমন ফাঁদে ফেলে বিশাল বর্মা তাকেও ধর্ষণ করেছিল। সেই সঙ্গে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে তার গয়নাও হাতিয়ে নেয়। ওই নারীর আরও দাবি, বিশাল সেই সময় তাকে জানায় যে, তিনি তার ৬৬তম ‘শিকার’।

শনিবার রাতে চুঁচুড়া থানার কর্মকর্তা তীর্থসারথি হালদারের নেতৃত্বে একদল পুলিশ কেওটার ত্রিকোণ পার্কে অভিযান চালিয়ে বিশালের বাড়িতে ঢুকে বিশাল বর্মাকে এক নারীর সঙ্গে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করে।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই নারীকেও বিশাল একইভাবে ভয় দেখিয়ে শ্লীলতাহানি করেছে। বিশালের মোবাইল এবং তার কাছে থাকা বেশ কিছু মাইক্রোচিপে অসংখ্য নারীর ছবি ও ভিডিও জব্দ করেছে পুলিশ।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button