জাতীয়শিক্ষা

৪৩তম বিসিএসে আবেদনের সময় ২ মাস বাড়ল

সরকারি চাকরিতে ক্যাডার কর্মকর্তা নিয়োগের জন্য ৪৩তম বিসিএসের সার্কুলার অনুযায়ী আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত আবেদন নেওয়ার কথা। তবে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের দাবির কারণে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) এই আবেদনের সময়সীমা আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাড়াতে ‘সরকারি কর্ম কমিশনকে (পিএসসি) অনুরোধ জানিয়েছিল। এজন্য ২১ জানুয়ারি ইউজিসি থেকে চিঠি দিয়ে পিএসসিকে এ অনুরোধ জানানো হয়। এ অনুরোধে সাড়া দিয়েছে পিএসসি। আবেদনের সময়সীমা ৩১ মার্চ সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

বুধবার এ কথা জানিয়ে পিএসসির জনসংযোগ কর্মকর্তা ইশরাত শারমীন এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান, ৩১ মার্চ সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে কেবল ইউজার আইডি প্রাপ্ত প্রার্থীরা এ সময়ের পরবর্তী ৭২ ঘন্টার মধ্যে (৩ এপ্রিল সন্ধ্যা ৬টা) এসএমএস এর মাধ্যমে ফি জমা দিতে পারবেন। নির্ধারিত এ তারিখের ও সময়ের পওে কোনো আবেদনপত্র গ্রহণযোগ্য হবে না। ৪৩তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা এ বছরের ৬ আগস্ট অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে গত ২১ জানুয়ারি পিএসসি চেয়ারম্যান বরাবর ইউজিসির পক্ষে সচিব স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে ৪৩তম বিসিএস পরীক্ষার আবেদনপত্র জমাদানের সময়সীমা আগামী ৩১ মার্চ ২০২১ তারিখ পর্যন্ত বৃদ্ধি করার বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছিল।

চিঠিতে বলা হয়, বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ১৮ মার্চ ২০২০ তারিখ থেকে বন্ধ রয়েছে। এ অবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয়সমূহে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে সেমিস্টারের চুড়ান্ত পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে ১৩ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে ইউজিসি চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের উপাচার্যগণের সাথে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের সেমিস্টারের চুড়ান্ত পরীক্ষা স্বাস্থ্যবিধি মেনে গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় বিসিএস পরীক্ষার আবেদনের সময় বৃদ্ধির ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর পক্ষ থেকে উপাচার্যগণ কমিশনকে পদক্ষেপ নেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়। ইউজিসিও করোনা পরিস্থিতির কারণে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর এ প্রস্তাবের সাথে একমত পোষণ করে।

এর আগে গত ডিসেম্বরে এ বিসিএসের সার্কুলার দেয় ‘সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। ৪৩তম সাধারণ বিসিএসে বিভিন্ন ক্যাডারে এক হাজার ৮১৪ জন কর্মকর্তা নেওয়া হবে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ৪৩তম সাধারণ বিসিএসের মাধ্যমে প্রশাসন ক্যাডারে ৩০০ জন, পুলিশ ক্যাডারে ১০০ জন, পররাষ্ট্র ক্যাডারে ২৫ জন, শিক্ষা ক্যাডারের জন্য ৮৪৩ জন, অডিটে ৩৫ জন, ট্যাক্সে ১৯ জন, কাস্টমসে ১৪ জন, সমবায়ে ২০ জন, ডেন্টাল সার্জন পদে ৭৫ জন এবং অন্যান্য ক্যাডারে ৩৮৩ জনকে নিয়োগ করা হতে পারে।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button