আদমদিঘী উপজেলাশেরপুর উপজেলাসারিয়াকান্দি উপজেলা

সারিয়াকান্দিতে মতি,শেরপুরে খোকা এবং সান্তাহারে ভুট্ট মেয়র নির্বাচিত

বগুড়ায় ৩টি পৌরসভা নির্বাচনে সারিয়াকান্দিতে ৯টি ভোট কেন্দ্রে ৬৫৭৪ ভোট পেয়ে নৌকা প্রার্থী মতিউর রহমান মতি,শেরপুরে ১১টি ভোট কেন্দ্রে ৮৭৬৯ ভোট পেয়ে সতন্ত্র প্রার্থী জানে আলম খোকা, সান্তাহারে ১২ টি ভোট কেন্দ্রে ৭৭৮৮ ভোট পেয়ে তোফাজ্জল হোসেন ভুট্ট বেসরকারিভাবি মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন।

এর আগে,দ্বিতীয় দফা পৌরসভা নির্বাচনে বগুড়ার সারিয়াকান্দি, সান্তাহার ও শেরপুর পৌরসভায় সুষ্ঠভাবেই ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।

আজ শনিবার (১৬ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোট প্রদান করেছেন এই তিন পৌরসভার ভোটাররা। সকাল থেকেই প্রচন্ড শীত উপেক্ষা করে নারী পুরুষের ভিড় দেখা গেছে ভোট কেন্দ্রগুলোতে। ২/১ টি ঘটনা ছাড়া কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। সান্তাহার ও সারিয়াকান্দি পৌরসভায় প্রথমবারের মতো ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে এবং শেরপুর পৌরসভায় ব্যালটে ভোটগ্রহণ করা হয়েছে।

ভোটযুদ্ধে এবার সারিয়াকান্দি পৌরসভায় নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থিী ছাড়াও আ.লীগের দুই নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, মাঠে আছন বিএনপির প্রার্থীও। সারিয়াকান্দি পৌরসভায় নারী পুরুষ মিলিয়ে ১৪ হাজার ১৫৮ জন ভোটারের জন্য ৯টি ভোট কেন্দ্র করা হয়েছে। মেয়র পদে লড়ছেন ৪ জন এবং সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ১১ জন ও সাধারন ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৩১ জন প্রার্থী।

শেরপুরে আ.লীগ ও বিএনপির পাশাপাশি বিএনপির প্রবীন নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। মাঠে আছেন ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থীও। শেরপুরে নারী-পুরুষ মিলিয়ে মোট ভোটার ২৩ হাজার ৭৫৪ জন। এ নির্বাচনে মেয়র পদে লড়ছেন ৪ জন আর সংরক্ষিত ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে মোট ৪৬ জন প্রার্থী রয়েছেন ভোটের মাঠে।

এদিকে, সান্তাহার পৌরসভায় আওয়ামী লীগ, বিএনপি এবং ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থীরা মেয়র পদে লড়ছেন। সান্তাহারে নারী ভোটার ১২ হাজার ৫৪৮ জন এবং পুরুষ ভোটার রয়েছেন ১৩ হাজার ১২১ জন। মেয়র পদে লড়ছেন ৩ জন আর সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ১০ জন, ওয়ার্ড সাধারন কাউন্সিলর পদে ২৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ পৌরসভায় ১২টি ভোট কেন্দ্রে চলেছে ভোটগ্রহণ।

তিন পৌরসভায় সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত করতে ৩২ জন প্রিজাইডিং অফিসার ও ২২৪ জন সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার নিয়োগ করা হয়েছিল। কাজ করছেন ৪৪৮ জন পোলিং অফিসার এবং ৭০৪ জন ভোট গ্রহণকারী কর্মকর্তা।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button