আন্তর্জাতিক খবর

ভারতে টিকাদান শুরু, প্রথম দিনে ৩ লাখ মানুষ টিকা নিচ্ছে

শনিবার থেকে ভারতে করোনা টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে৷ প্রথম দিন টিকা পাচ্ছেন প্রায় তিন লাখ মানুষ৷

শনিবার সকাল দশটায় ভারতে শুরু হয়ে গেল করোনার টিকাকরণ প্রক্রিয়া৷ ভার্চুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টিকাকরণ প্রকল্পের উদ্বোধন করেন৷ প্রথম দিন গোটা দেশে প্রায় তিন লাখ মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে৷ টিকা কার্যক্রম এগিয়ে নিতে একটি অ্যাপও চালু করা হয়েছে৷

এই মুহূর্তে ভারতে করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে৷ একটি সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন৷ অন্যটি ভারত বায়োটেকের তৈরি টিকা৷ গত সপ্তাহের গোড়াতেই দেশের বিভিন্ন রাজ্যে টিকা পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়৷ শনিবার সাড়া দেশের তিন হাজার ছয়টি ভ্যাকসিন সেন্টারে প্রথম টিকা দেয়া শুরু হয়৷ সকাল দশটায় প্রধানমন্ত্রী মোদী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই প্রকল্পের উদ্বোধন করেন৷ ভ্যাকসিন নেওয়ার পরে বেশ কিছু সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথাও বলেন তিনি৷

প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, প্রথম দিন তিন লাখ মানুষকে টিকা দেওয়া হচ্ছে৷ তারা প্রত্যেকেই স্বাস্থ্যকর্মী অথবা স্বাস্থ্য সংক্রান্ত কাজের সঙ্গে যুক্ত৷ ইংরেজিতে যাদের ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কার্স বলা হচ্ছে৷ এর মধ্যে চিকিৎসক, নার্স যেমন আছেন, তেমনই পরিচ্ছন্নতাকর্মী, অ্যাম্বুল্যান্স চালকরাও আছেন৷ গত এক বছর ধরে যারা কোভিডের সঙ্গে সামনে থেকে কাজ করেছেন৷

এদিন প্রধানমন্ত্রী একটি অ্যাপেরও উদ্বোধন করেছেন৷ যার নাম কোউইন বা কোভিড ভ্যাকসিন ইন্টেলিজেন্স নেটওয়ার্ক৷ এই অ্যাপের মাধ্যমে ভ্যাকসিনের ডেলিভারি, ডিস্ট্রিবিউশন ইত্যাদির উপর নজরদারি চালানো হবে৷

শনিবার টিকাকরণের প্রক্রিয়া চালু হওয়ার আগেই ভ্যাকসিন দেওয়ার একটি গাইডলাইন প্রচার করা হয়েছে৷ সেখানে বলা হয়েছে, ১৮ বছরের নীচে আপাতত কাউকে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে না৷ গর্ভবতী নারীদেরও ভ্যাকসিন দেওয়া হবে না৷ স্বাস্থ্যকর্মী বা ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কার্সদের পাশাপাশি পঞ্চাশ বছরের বেশি কোমরবিডিটি আছে এমন মানুষদেরও টিকা দেওয়া হবে৷ ভ্যাকসিন দেওয়ার ১৪ দিন পর্যন্ত টিকাপ্রাপকদের নিয়মিত চেকআপ হবে৷ কারো কোনো সমস্যা হলে ১০৭৫ নম্বরে ফোন করা যাবে৷ শুধুমাত্র কোভিডের জন্যই এই নম্বরটি তৈরি করা হয়েছে৷

গাইডলাইনে বলা হয়েছে, কিছুদিনের মধ্যেই গোটা দেশে পাঁচ হাজার টিকাদান কেন্দ্র তৈরি করা হবে৷ প্রথম পর্যায়ে এক কোটি ৬৫ লাখ টিকা দেওয়া হবে৷

যিনি যেই ভ্যাকসিনটির প্রথম ডোজ পাবেন, দ্বিতীয় ডোজও সেই ভ্যাকসিনেরই দেওয়া হবে৷

আগামী এক সপ্তাহ প্রতিটি ভ্যাকসিন সেন্টারেই টিকা দেওয়া হবে৷ প্রথম দিন প্রতিটি সেন্টারে টিকা দেওয়া হয়েছে একশটি করে৷

Copyright: DW

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button