শিক্ষা

ষষ্ঠ শ্রেণীতে লটারিতে চান্স পেল ৭৭ হাজার ১৪৪ জন

৩৯০টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে লটারি কার্যক্রম শেষ হয়েছে। ভর্তির সুযোগ পাচ্ছে ৭৭ হাজার ১৪৪ জন শিক্ষার্থী। করোনার স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই ভর্তি কার্যক্রম শেষ করার নির্দেশ শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির।

গত ১৫ ডিসেম্বর থেকে সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তি আবেদন শুরু হয়। এতে আবেদন পড়ে ৫ লাখ ৭৪ হাজার ৯২৯ জন শিক্ষার্থীর।

৩০ ডিসেম্বর হওয়ার কথা ছিল এই লটারি। কিন্তু ২৯ ডিসেম্বর একজন অভিভাবকের দায়ের করা রিটের শুনানি শেষে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দেওয়া ১১ বছর বয়সের শর্ত স্থগিত করে আদেশ দেয় হাইকোর্ট। ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রমের সময়সীমা ৭ দিন বাড়ানোরও আদেশ দেয়া হয়।

এরপর বয়সসীমা তুলে দিয়ে সোমবার হয় লটারি কার্যক্রম। করোনার কারণে কেন্দ্রীয়ভাবে আন্তজার্তিক মার্তৃভাষা ইনস্টিটিউটে সফটওয়ারের মাধ্যমে এই লটারি অনুষ্ঠিত হয়।

লটারিতে ভর্তির সুযোগ পাচ্ছে ৭৭ হাজার ১৪০ জন শিক্ষার্থী। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর জানায়, পুরোপুরি স্বচ্ছভাবে এই লটারি কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানান, ভর্তি কার্যক্রম স্বাস্থ্যবিধি মেনে শেষ করতে হবে প্রতিষ্ঠানগুলোকে।

স্কুলগুলো বলছে, ভর্তি কার্যক্রম পরিচালনার সব প্রস্তুতি রাখা হয়েছে।

লটারি কার্যক্রম নিয়ে সন্তোস প্রকাশ করেছেন অভিভাবকেরা। আর দ্রুত স্কুলে ফিরতে চায় শিক্ষার্থীরাও।

বাসায় থাকলেও শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার মধ্যে রাখার আহ্বান জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button