খেলাধুলা

বিচারের মুখোমুখি ফুটবলার করিম বেনজেমা

২০১৫ সালের সেক্স-টেপ বিতর্ক এখনও পিছু ছাড়েনি করিম বেনজেমার। সতীর্থ ম্যাথু ভালবুয়েনাকে ব্ল্যাকমেইল করার অভিযোগের বিষয়টি এখনও বিচারাধীন। সতীর্থ ম্যাথু ভালবুয়েনের এক স্পর্শকাতর ভিডিও পেয়ে যায় দুই ব্যক্তি। সে ঘটনায় জড়িয়ে পড়েন করিম বেনজেমা। সেই জড়িয়ে পড়া তার ক্যারিয়ারকেই বদলে দিয়েছে। ফ্রান্স দলের মূল স্ট্রাইকার ছিলেন। কিন্তু সে ঘটনায় জাতীয় দলে জায়গা হারিয়েছেন। খেলতে পারেননি ২০১৬ ইউরো। ২০১৮ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্যও হতে পারেননি এ ঘটনার কারণেই। এখন সেই ঘটনায় বিচারের মুখোমুখি হতেই হচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদের ফরাসি স্ট্রাইকারকে।

২০১৫ সালের নভেম্বরে এ ঘটনায় ভার্সেইয়ে এক রাত জেলহাজতেও কাটাতে হয়েছিল বেনজেমাকে। তখন বেনজেমা বলেছিলেন, বড় কোনো ভুল–বোঝাবুঝি হচ্ছে। আমি শুধু ম্যাথুকে সাবধান করার চেষ্টা করেছিলাম। ওকে সাহায্য করতে চেয়েছিলাম। 

এরপর রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ক্যারিয়ার–সেরা পারফরম্যান্স করেও আর জাতীয় দলে ফিরতে পারেননি বেনজেমা। এ ব্যাপারে যে ভালবুয়েনার ওপর রাগ পুষে রেখেছেন, সেটা টের পাওয়া গেছে কয়েক বছর আগে। নিজের সে ঘটনা ভুলে ভালবুয়েনা আবার শান্তির ডাক দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, বেনজেমার সঙ্গে দেখা হলে হাত মেলাবেন তিনি। জবাবে বেনজেমা বলেছিলেন, তোমার হাত তোমার কাছেই রাখো।

রিয়াল মাদ্রিদ তারকা অবশ্য দাবি করেছেন, তাকে অনৈতিকভাবে এই ঘটনায় জড়িয়েছে এক পুলিশ। কিন্তু বেনজিমা সেই দাবি করলেও ভার্সেইয়ের প্রসিকিউটর অফিস থেকে বেনজিমাকে জানানো হয়েছে যে, তাকে আদালতে বিচারের মুখোমুখি হতেই হবে। যদিও এই বিচারের দিনক্ষণ এখনও চূড়ান্ত হয়নি। বেনজিমার আইনজীবী সিলভেইন কর্মিয়ের বলেছেন, ‘এমন কিছু যে হতো সেটা বোঝা যাচ্ছিল। কিন্তু সিদ্ধান্তটি কোনওভাবেই যৌক্তিক নয়।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button