আন্তর্জাতিক খবর

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল ভবনে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলা, নিহত ৪

সিনেটে জো বাইডেনের জয়ের স্বীকৃতির প্রক্রিয়ার সময় যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল ভবনে ট্রাম্পের দাঙ্গাবাজ সমর্থকরা ভয়াবহ সহিংসতা চালিয়েছে। এই সহিংসতার সময় পুলিশের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ বাঁধে। এতে অন্তত চারজন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটন ডিসি’র পুলিশ। খবর বিবিসি’র।

বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল ভবনে ঢুকে পড়েছিল ডোনাল্ড ট্রাম্পের কয়েক হাজার বিক্ষুব্ধ সমর্থক। কাঁদানে গ্যাস ও পেপার স্প্রে ব্যবহার করেও তাদের ছত্রভঙ্গ করতে না পেরে বাধ্য হয়ে ক্যাপিটল ভবন অবরুদ্ধ করে রেখেছিল পুলিশ। এক পর্যায়ে পুলিশের সাথে দাঙ্গাবাজদের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে গেলে গুলি করা হয়।

বিজ্ঞাপন

পুলিশের গুলিতে এক নারী নিহত হন। পরে আহতদের মধ্য থেকে আরও তিনজনের মৃত্যু হয়। এখন পযন্ত ৫২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৪৭ জনকে কারফিউ ভাঙ্গার দায়ে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

ক্যাপিটল হিলের বিক্ষোভ সম্পর্কে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ওয়াশিংটন ডিসির মেয়র বাউজার। তিনি জানান, হাউজ রুমে অধিবেশন চলাকালে কয়েকজন জোরপূর্বক প্রবেশ করে। ওই দলটির সদস্য ছিলেন গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যাওয়া নারী।

তিনি আরও জানান, অধিবেশনে প্রবেশ করা জোরপূর্বক দলটিকে সাদা পোশাকের কয়েকজন কর্মকর্তা বাধা দেন এবং তাদের একজনের গুলিতে ওই নারী মারা যান।

নিহত হওয়া বাকি তিনজনের একজন নারী ও দুই জন পুরুষ। এছাড়া মেট্রো পুলিশ ডিপার্টমেন্টের অন্তত ১৪ জন সদস্য আহত হয়েছেন বলে জানান তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের মিডিয়া রিপোর্ট থেকে জানা যায়, ক্যাপিটল ভবনে প্রবেশ করার পর গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যাওয়া প্রথম নারী সাবেক মার্কিন সেনা সদস্য। স্যান ডিয়েগোর বাসিন্দা অ্যাশলি ব্যাবিট।

তিনি ওয়াশিংটন সময় দুপুর ৩টার দিকে গুলিবিদ্ধ হন এবং পরবর্তীতে হাসপাতালে নিলে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

আমেরিকার আইন-প্রণেতারা যখন জো বাইডেনের জয় আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদন করার জন্য অধিবেশনে বসেছিলেন, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শত শত সমর্থক তখন আমেরিকার আইনসভা কংগ্রেসের ভবন ক্যাপিটলে ঢুকে পড়ে।

দুপুরের পরই আমেরিকার রাজধানী শহরে এই নাটকীয় দৃশ্যে দেখা যায়। শত শত বিক্ষোভকারী ভবনটিতে ঢুকে পড়ছে আর পুলিশ কংগ্রেস সদস্যদের নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিচ্ছে। ভবনটি কয়েক ঘণ্টা দখল করে রাখার পর বিক্ষোভকারীরা ধীরে ধীরে ক্যাপিটল প্রাঙ্গণ ছেড়ে বাইরে চলে যেতে থাকে।

সহিংসতার ঘটনাকে কেন্দ্র করে যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী শহর ওয়াশিংটনে বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে কার্ফু জারি করা হয়েছে। বলা হয়, বৃহস্পতিবারও এই কার্ফু কার্যকর থাকবে।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button