আন্তর্জাতিক খবর

করোনার কারনে বেকারত্ব আর খাদ্য সংকট থেকে বাদ পড়েনি যুক্তরাষ্ট্রও

করোনায় বিশ্বজুড়ে বেকারত্ব আর খাদ্য সংকট থেকে বাদ পড়েনি যুক্তরাষ্ট্রও। বর্তমানে দেশটির অন্তত ৬০ ভাগ মানুষ খাবারের জন্য নির্ভরশীল, একাধিক সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ওপর। বিভিন্ন রাজ্যের ত্রাণ কেন্দ্রগুলোর পাশে রাত থেকে পড়ছে লম্বা লাইন। লজ্জা ভুলে খাদ্য সহায়তা চাইতে বাধ্য হচ্ছেন অসংখ্য মার্কিন নাগরিক।

সারিবদ্ধ গাড়িগুলোতে হাজারও মানুষের অপেক্ষা একমুঠো খাবারের জন্য। এই চিত্র খোদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লুইজিয়ানা রাজ্যের। তাদেরই একজন নরমেন বাটলার অপেক্ষা করছেন ভোরের আলো ফোটার। কারণ তখনই মিলবে কাঙ্ক্ষিত খাবার। তিনি বলেন, করোনায় অনেকে বাসা থেকে বের হতে পারে না, এছাড়া কাজের সুযোগও অনেক কম। তাই স্বাভাবিকভাবেই আমাদেরকে হাত পাততে হচ্ছে খাবারের জন্য।

নরমেনের মতো যুক্তরাষ্ট্রের অনেকেই এখন কর্মহীন। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে দুশ্চিন্তায় দিন কাটছে তাদের। তাদের একজন বলেন, সরকারের কাছ থেকে পাওয়া খাবারের ওপর নির্ভর থাকতে হয়। জানিনা কাজ না পেলে সামনের দিনগুলো কিভাবে কাটবে। নিজের চাইতেও সন্তানদের নিয়ে বেশি চিন্তা হয়।

করোনা মহামারীর প্রভাবে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ত্রাণের ভরসায় দিন কাটানো মানুষের সংখ্যা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ফিডিং আমেরিকার জরিপ বলছে, বর্তমানে এই সংখ্যা প্রতি ১০ জনে ৬ জন।

পুরো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ১৮১টি ফুড ব্যাংকের মাধ্যমে প্রতি সপ্তাহে ১ কোটি ৬০ লাখ পাউন্ড খাবার সরবরাহ করছে ফিডিং আমেরিকা।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button