জাতীয়

নতুন ঠিকানায় রোহিঙ্গারা

সব ধরনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে সকাল সাড়ে ১০ টায় ভাসানচরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে রোহিঙ্গাদের বহনকারী জাহাজগুলো। প্রস্তুত নৌবাহিনীর আটটি জাহাজসহ মোট ১৯ টি জলযান। আগেই কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে চট্টগ্রাম বোটক্লাবে এসে জড়ো হয়েছিলেন রোহিঙ্গারা। শুক্রবার সকাল ১০টা নাগাদ দলে দলে নির্ধারিত জাহাজে উঠতে থাকেন তারা।

পুরো পথে রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তায় নৌবাহিনীর সাথে ছিলো সেনাবাহিনীর নৌযান- ‘শক্তি সঞ্চার’। বিশাল বহরে ছিলো কোস্টগার্ড, র‌্যাব এবং গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা।

স্বেচ্ছায় আসা এই রোহিঙ্গারা ভাসানচরে নতুন জীবনের স্বপ্ন দেখলেও যত দ্রুত সম্ভব নিজ দেশেই ফিরে যেতে চান।

প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা সাগরে ভেসে অবশেষে ভাসানচরে পৌঁছান প্রথম ধাপে আসা এক হাজার ৬৪২ জন রোহিঙ্গা। তাদের স্বাগত জানান নৌবাহিনীসহ এনজিও সংস্থার প্রতিনিধিরা।

পরে রোহিঙ্গাদের জন্য তৈরি বিশাল ওয়্যার হাইজে নিজেদের ভবিষ্যত কল্যাণ কামনার দোয়া মোনাজাত করেন রোহিঙ্গারা।

দোয়া মোনাজাত শেষে নতুন ঠিকানায় ছোটেন রোহিঙ্গারা। পরিকল্পনা অনুযায়ী পরিবার পরিজন নিয়ে নির্ধারিত ঘর-বাড়িতে ওঠেন তারা। দালানবাড়ি পেয়ে বেশিরভাগ রোহিঙ্গাদের মধ্যেই ছিলো উচ্ছ্বাস।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button
error: Content is protected !!