খেলাধুলা

ভারতের বিপক্ষে নিজেদের সর্বোচ্চ রানের ইনিংস গড়ল অস্ট্রেলিয়া

অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ফিরল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। করোনাভাইরাস বিরতির পর প্রথমবারের মতো কোনো ক্রিকেট ম্যাচে ফিরল দর্শকও। নানা উপলক্ষের মুহ‚র্তগুলো আরও উজ্জ্বল হয়ে উঠল অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানদের তান্ডবে। ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ, স্টিভেন স্মিথ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের কল্যাণে ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডেতে নিজেদের সর্বোচ্চ রানের ইনিংস গড়ল তারা।

গতকাল তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে রানের পাহাড়ে চড়েছে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া। সিডনিতে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ৩৭৪ রান তুলেছে তারা। ভারতের বিপক্ষে দলটির আগের সর্বোচ্চ স্কোর ছিল ২০০৩ বিশ্বকাপের ফাইনালে। তারা করেছিল ২ উইকেটে ৩৫৯ রান।

জিততে হলে নিজেদের রান চেজের নতুন রেকর্ডই করতে হতো ভারতকে। আর শেখর ধাওয়ান ও হার্দিক পান্ডিয়ার ব্যাটে লড়াইটাও জমিয়ে দিয়েছিল তারা। তবে শেষ পর্যন্ত পেরে ওঠেনি দলটি। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ৩০৮ রানের বেশি করতে পারেনি ভারত। নিজেদের মটিতে ক্রিকেট ফেরার দিনে জয় তুলে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ফিঞ্চ-স্মিথের জোড়া সেঞ্চুরিতে ভারতকে হারিয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল অজিরা। অধিনায়ক ফিঞ্চের ব্যাট থেকে আসে দারুণ সেঞ্চুরি। ১২৪ বলে ৯ চার ও ২ ছয়ে ১১৪ রান করেন তিনি। তিনে নেমে ঝড়ো সেঞ্চুরি করেন স্মিথ। মাত্র ৬২ বলে তিন অঙ্কের ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছান তিনি। সাজঘরে ফেরার আগে ৬৬ বলে করেন ১০৫ রান। তার ইনিংসে ছিল ১১ চার ও ৪ ছক্কা। ওপেনার ওয়ার্নার ৭৬ বলে করেন ৬৯ রান। পাঁচে নেমে টর্নেডো ব্যাটিং করেন ম্যাক্সওয়েল। ৫ চার ও ৩ ছয়ে ১৯ বলে ৪৫ রানে আউট হন তিনি।

ফিঞ্চ ও ওয়ার্নারের উদ্বোধনী জুটিতে আসে ১৫৬ রান। দ্বিতীয় উইকেটে ফিঞ্চ ও স্মিথ যোগ করেন ১০৮ রান। উইকেট হাতে থাকায় শেষ ১০ ওভারে ভারতীয় বোলারদের কচুকাটা করে অজিরা। স্মিথ-ম্যাক্সওয়েলের দাপটে ১১০ রান তোলে তারা। ভারতের পাঁচ বোলারের মধ্যে ওভারপ্রতি ছয়ের নিচে রান দিতে পারেন কেবল মোহাম্মদ শামি। তিনি ৫৯ রানে নেন ৩ উইকেট। অস্ট্রেলিয়ার রান উৎসবের ম্যাচে বিব্রতকর রেকর্ড গড়েছেন যুজবেন্দ্র চাহাল। ওয়ানডেতে ভারতীয় স্পিনারদের মধ্যে সবচেয়ে খরুচে বোলিংয়ের রেকর্ডে নিজেকেই ছাড়িয়ে গেছেন তিনি। ১০ ওভারে ১ উইকেট নিতে তিনি দিয়েছেন ৮৯ রান। গত বছর ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে স্বাগতিকদের বিপক্ষে ৮৮ রান দিয়েছিলেন তিনি।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর এদিন প্রথমবারের মাঠে বসে খেলা দেখার সুযোগ পায় সমর্থকরা। যদিও সামাজিক দ‚রত্ব বজায় রেখে ঢুকতে পেরেছেন ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক দর্শক। তবে এর মধ্যেই আবার নিরাপত্তা বলয় ভেঙে মাঠের ভেতরে ঢুকে পড়েন দুই প্রতিবাদী দর্শক। অস্ট্রেলিয়ায় ভারতের আদানি গ্রুপের কয়লা প্রকল্পের বিরোধিতায় কিছু কথা লেখা একটি প্ল্যাকার্ড নিয়ে প্রায় পিচের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিলেন তারা। পরে স্টেডিয়ামের নিরাপত্তাকর্মীরা তাদেরকে মাঠ থেকে বের করে নিয়ে যান।

ম্যাচের শুরুতে সদ্য প্রয়াত ডিন জোন্সসহ ফিল হিউজের স্মরণে এক মিনিট পর নীরবতা পালন করা হয়। আর নিজেদের আদিবাসিদের সম্মান জানাতে বিশেষ জার্সি পরে খেলে অস্ট্রেলিয়া। ভারতও ১৯৯২ বিশ্বকাপ জার্সি পরে মাঠে নামে।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button