আন্তর্জাতিক খবর

অবৈধ অভিবাসীদের নিজ দেশে ফিরতে মালয়েশিয়ার নির্দেশনা

অবৈধ অভিবাসীদের বৈধতার পাশাপাশি যেসব অবৈধ অভিবাসী নিজ দেশে ফেরত যেতে চান সে বিষয়ে একটি নির্দেশনা দিয়েছে সরকার।

এছাড়া বাংলাদেশে আটকেপড়া প্রবাসীরা মালয়েশিয়ায় ফেরত যেতে আবারও নতুন করে আবেদনের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে এবং আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মালয়েশিয়ায় ফেরা বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতুক সেরি হামজা বিন জায়নুদ্দিন।

এছাড়া ১৬ নভেম্বর থেকে অবৈধ অভিবাসীদের বৈধতা দেয়ার কার্যক্রম শুরু হবে। যে সমস্ত অবৈধ অভিবাসী বৈধতার সুযোগ গ্রহণ না করে নিজ নিজ দেশে ফেরত যেতে চান, তারা চাইলে ফেরত যেতে পারবেন।

এক্ষেত্রে তাদের পাসপোর্ট, করোনাভাইরাস পরীক্ষা সম্পন্নের রিপোর্ট এবং প্রয়োজনীয় তথ্যাদিসহ ইমিগ্রেশন বিভাগে আবেদন করার জন্য বলা হয়েছে।
এর আগে গত বছর ১ আগস্ট থেকে মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন বিভাগ অবৈধ প্রবাসীদের ফেরাতে ‘ব্যাক ফর গুড (বি-ফোর-জি)’ কর্মসূচির আওতায় সাধারণ ক্ষমা ঘোষণার কার্যক্রম শুরু করে।
এর মেয়াদ শেষ হয় ৩১ ডিসেম্বর।

উল্লেখ্য, ‘ব্যাক ফর গুড’ প্রোগ্রাম শেষ হওয়ার পরপরই বাদ পড়া ও প্রতারিত অবৈধ কর্মীদের বৈধতা প্রদানে মালয়েশিয়া সরকারের কাছে প্রস্তাব দেন বাংলাদেশের তৎকালীন হাইকমিশনার শহীদুল ইসলাম। এ নিয়ে তিনি দেশটির বেশ কয়েকজন মন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেছেন। ওই সময় মালয়েশিয়া সরকার অবৈধ অভিবাসীদের বৈধতা দেবে বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক খাইরুল দাজায়মি দাউদ গত আগস্টে কুয়ালালামপুরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, মালয়েশিয়ায় যারা এক বছরের কম সময় অবৈধভাবে বসবাস করছেন, তারা ১ হাজার রিঙ্গিত ও যারা এক বছরের বেশি সময় ধরে অবৈধভাবে বসবাস করছেন তারা ৩ হাজার রিঙ্গিত জরিমানা দিয়ে নিজ দেশে ফিরে যেতে পারবেন। এক্ষেত্রে জরিমানা দিয়ে বিশেষ পাস (স্পেশাল পাস) সংগ্রহ করতে হবে।

এদিকে করোনায় টানা লকডাউনের কারণে মালয়েশিয়া থেকে ছুটিতে বাংলাদেশে গিয়ে আটকা পড়ে অনেকের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে বা শেষ হওয়ার পথে। কিন্তু দেশটির সরকারের অনুমতিপত্র না পাওয়ায় তারা ফিরতে পারছেন না। তারা হতাশা ও মানবেতর জীবনযাপন করছেন, তাদের মালয়েশিয়া ফেরার অনুমতির আবেদন বারবার রিজেক্ট করা হয়েছে। সাধারণ কর্মীরা উপযুক্ত তথ্য-উপাত্তসহ পুনরায় ইমিগ্রেশন বরাবর আবেদন করা হলে তাদের আবেদন বিশেষ বিবেচনা করা হবে বলে মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button
error: Content is protected !!