আন্তর্জাতিক খবর

ইরানের উপর যুক্তরাষ্ট্রের নতুন নিষেধাজ্ঞা

বিজ্ঞাপন

বগুড়া লাইভ ডেস্কঃ যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের যুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে যাওয়া নিয়ে টান টান উত্তেজনার ভিতরে নতুনভাবে ইরানের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলো ট্রাম্প প্রশাসন।

ট্রাম্প ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের নির্বাহী আদেশ দিয়েছেন। হোয়াইট হাউজ শুক্রবার প্রকাশ করেছে সেই আদেশের অনুলিপি জানিয়েছে সিএনএন।

এতে বিশ্বে সন্ত্রাসের বড় ধরনের মদদদাতা, সামরিক শক্তি ব্যবহার করে যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটি ও সেনাদেরকে হুমকির মুখে ফেলাসহ ইরান-সমর্থিত মিলিশিয়া গোষ্ঠীগুলোকে সহায়তাকারী দেশ হিসাবে ইরানকে নিষেধাজ্ঞার আওতায় রাখতে বলা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী স্টিভ মিউচিন বলেছেন, ইরানের বেশ কয়েকটি শিল্প নতুনভাবে নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়বে। এগুলোর মধ্যে আছে নির্মাণ শিল্পসহ, শিল্প উৎপাদন, বস্ত্র, খনি, ইস্পাত ও লোহা শিল্প। এ নিষেধাজ্ঞার লক্ষ্য হলো বিশ্বে ইরানের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বন্ধ করা।

আরো কিছু নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়বেন ইরানের ৮ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা। এই ৮ কর্মকর্তারা এ সপ্তাহে ইরাকে অবস্থিত মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে ইরানের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় জড়িত ছিলেন বলে জানান ট্রাম্প প্রশাসন।

ইরানের ‘অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা বলয়’ এ শাস্তিমূলক নিষেধাজ্ঞার টার্গেট বলে জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।এর আগে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বৃহস্পতিবার নিষেধাজ্ঞা কেমন হবে সে সম্পর্কে পূর্বাভাস দিয়ে বলেছিলেন, ইরানের ওপর যে নিষেধাজ্ঞা এখনো আছে তা অনেক কঠোর। কিন্তু এখন এগুলো আরো অনেক বেশি কঠোরভাবে বাড়িয়ে দেওয়া হবে।

ইরাকে মার্কিন সৈন্য ঘাঁটিতে গত সপ্তাহে ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলার জবাবে ট্রাম্প প্রশাসন বুধবার সামরিক শক্তি প্রয়োগের পথে না গিয়ে ইরানের ওপর বাড়তি এই নিষেধাজ্ঞা আরোপের সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলেন হোয়াইট হাউজের ভাষণে।

যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যে উত্তেজনার সূত্রপাত ঘটে মার্কিন ড্রোন হামলায় ইরানি শীর্ষ কমান্ডার কাসেম সোলেমানি নিহতের ঘটনার মধ্য দিয়ে। সোলেমানি হত্যার বদলা নেওয়ার জন্য ইরান ইরাকের মার্কিন সৈন্য ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button
ভাষা নির্বাচন