দুপচাঁচিয়া উপজেলাবগুড়ার ইতিহাস

দুপচাঁচিয়া উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম এ.বি.এম শাহ্জাহান সাহেব


বীর মুক্তিযোদ্ধা এ.বি.এম শাহ্জাহান সাহেব আগষ্ট ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দে বগুড়া জেলার দুপচাঁচিয়া উপজেলাধীন তালোড়া ইউনিয়নের বেলঘড়িয়া গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। পিতাঃ মরহুম নুরুল হুদা (স্কুল শিক্ষক) এবং মাতাঃ আবেদা খাতুন (সভ্রান্ত পরিবারের সন্তান ও অত্যান্ত রুচিশীল, বুদ্ধিমতী ছিলেন গৃহিনী ছিলেন।) পিতা-মাতার ১০ জন সন্তানের মধ্য তাহাঁর অবস্থান ষষ্ঠ।
তিনি ১৯৭৩ খ্রিষ্টাব্দে হাফিজা খাতুনের সহিত বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। (জনাবা হাফিজা খাতুন পরবর্তী সময়ে যুগ্ম সচিব, বাংলাদেশ সচিবালয় থেকে অবসর গ্রহণ করেন।) সাংসারিক জীবনে তিনি ৩ পুত্র সন্তানের জনক ছিলেন। শিক্ষাজীবনঃবীর মুক্তিযোদ্ধা এ.বি.এম শাহ্জাহান ১৯৬৩ খ্রিষ্টাব্দে তালোড়া আলতাফ আলী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে কৃতিত্বের সহিত ম্যাট্রিকুলেশন পাশ করেন। অতঃপর তিনি বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক (বিজ্ঞান) শ্রেণীতে ভর্তি হন এবং ১৯৬৫ খ্রিষ্টাব্দে কৃতিত্বের সহিত উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেন।
অতঃপর তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। উক্ত প্রতিষ্ঠান থেকে রসায়ন শাস্ত্রে সন্মান এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন।
কর্মজীবনঃতিনি জনতা ব্যাংকের পরিচালক, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এবং রূপালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
রাজনৈতিকঃমেধাবী শাহ্জাহান ছাত্র জীবন থেকেই রাজনীতি সচেতন ছিলেন। তিনি জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। ১৯৮৬ খ্রিষ্টাব্দে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৫ দলীয় জোটের মনোনয়নে বগুড়া-৩ (আদমদীঘি-দুপচাঁচিয়া) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। অতঃপর তিনি এরশাদের জাতীয় পার্টিতে যোগ দেন এবং ১৯৮৮ খ্রিষ্টাব্দে পুনরায় সাংসদ নির্বাচিত হন।
১৯৯০ খ্রিষ্টাব্দের গোড়ার দিকে তিনি পাট প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন। একই বছরের ডিসেম্বর মাসে এরশাদ ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার কিছুদিন পর তিনি জাতীয় পার্টির মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করেন। তিনি ২০০৩ সালে ঢাকায় এক সড়ক দূর্ঘটনায় মারাত্মক আহত হন। ২০০৪ খ্রিষ্টাব্দে জাতীয় পার্টি থেকে এবং সক্রিয় রাজনীতি থেকে অবসর গ্রহণ করেন।
সেবামুলক কাজে অংশগ্রহণঃ তিনি বগুড়া জেলার সান্তাহার কলেজ এবং তালোড়া শাহ এয়তেবাড়িয়া কলেজ সরকারিকরণ করনে বিশেষ অবদান রাখেন। তাছাড়া তিনি তালোড়ায় একটি টেলিফোন এক্সচেঞ্জও প্রতিষ্ঠায় অবদান রাখেন।
মুক্তিযুদ্ধে অবদানঃ বীর মুক্তিযোদ্ধা এ.বি.এম শাহজাহান বাংলাদেশের স্বাধিনতা যুদ্ধে ভূয়সী অবদান ভুমিকা পালন করেন। একজন কমান্ডার হিসেবে বগুড়া জেলার দুপচাঁচিয়া, কাহালু, আদমদীঘি, নন্দীগ্রাম উপজেলায় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন।
তিনি ৮ মে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দে ইন্তেকাল করেন। বগুড়া জেলার দুপচাঁচিয়া উপজেলাধীন তালোড়া ইউনিয়নের বেলঘড়িয়া গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়।

বিজ্ঞাপন

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button