বগুড়া সদর উপজেলা

দখলবাজদের কবলে পড়ে মৃতপ্রায় বগুড়ার নদ-নদী

দখলবাজদের কবলে পড়ে বগুড়ার ঐতিহ্যবাহী করতোয়া, বাঙালী, নাগর প্রভৃতি নদ-নদী এখন মৃতপ্রায়। শিগগিরই দখলবাজদের হাত থেকে নদ-নদীকে বাঁচাবার উদ্যোগ না নিলে মুর্মূষু নদীগুলো চিরতরে বিলীন হবে। বগুড়া হয়ে উঠবে নদী শুণ্য। তবে ঐতিহ্যবাহী করতোয়া নদীটিই এখন সবচেয়ে বিপজ্জনক অবস্থায় রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

জেলা প্রশাসন, পানি উন্নয়ন বোর্ড ও পরিবেশ অধিদপ্তরের উদাসীনতার কারণে বছরের পর বছর ধরে দখলদাররা নদীর বুকে গড়ে তুলেছে বাড়িঘর, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ নানা ধরণের স্থাপনা।
একটি সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালে পাউবো ও পরিবেশ অধিদপ্তরকে অন্ধকারে রেখে করতোয়া নদীতে সীমানা নির্ধারণ খুঁটি স্থাপন করে জেলা প্রশাসন। ভূমি ব্যবস্থাপনা ম্যানুয়াল ১৯৯০-এর ৩৩৭ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নদীর তলদেশে জমির মালিকের কোনো অধিকার নেই। ৩৩৫ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নদীর দুধারে যে অংশে শুকনো মৌসুমে চর পড়ে কিন্তু র্বষা মৌসুমে ডুবে যায় তা ফোরশোর হিসেবে বিবেচিত হবে। এ প্রসঙ্গে বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আলিমুন রাজিব বলেন, উচ্ছেদ অভিযানকালে নদী সংরক্ষণ আইন মেনেই কাজ করা হবে।


এদিকে করতোয়াসহ বগুড়ার নদ-নদী গুলোকে দখলবাজদের হাত থেকে রক্ষার জন্য বগুড়ায় সামাজিক আন্দোলন শুরু হয়ে গেছে। বগুড়ায় ইতোমধ্যেই সেমিনার, অবস্থান কর্মসূচিসহ সপ্তাহব্যাপী নদী মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বগুড়ার সামাজিক সংগঠন গুলোর পক্ষ থেকে করতোয়াকে দখলমুক্ত করতে বগুড়া জেলা প্রশাসককে এবং বগুড়া জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারক লিপিও দেওয়া হয়েছে ।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button