শেরপুর উপজেলা

স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ও শুকুরের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ শেরপুর পৌরবাসী

বগুড়া জেলার শেরপুরে উপজেলায় শুকুরের অবাধ বিচরণে শেরপুর পৌরবাসী অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। এছাড়া অবাধে শুকুর বিচরণের কারণে পৌরবাসী নানান রকম স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে। এ বিষয়ে গতকাল সোমবার শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর অভিযোগ দায়ের করেছেন এলাকাবাসী।

বিজ্ঞাপন


উক্ত অভিযোগে বলা হয়, শেরপুর পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা লাল জি প্রায় গত ১৫ বছর যাবৎ শতাধিক শুকুর পালন করে আসছে। উন্মুক্তভাবে শুকুরগুলো পালন করায় প্রতিদিনই যেখানে-সেখানে মল-মূত্র ত্যাগ করে পরিবেশ দূষণ সহ ভারসাম্য নষ্ট করছে। শুকুর গুলি মসজিদ, মন্দির ও বসতবাড়িতে ঢুকে ধর্মীয় পবিত্রতায় বিঘ্ন ঘটাচ্ছে। রাস্তা-ঘাটের যেখানে সেখানে মল-মূত্র ত্যাগ করায় জনসাধারণের চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। এছাড়াও পৌরসভার উপযুক্ত ময়লা আবর্জনা রাখার সঠিক নির্দিষ্ট কোন ডাস্টবিন না থাকায় শুকুরগুলো ময়লা আবর্জনার স্তুপে খাবার সংগ্রহ করতে গিয়ে অবাধে রাস্তাঘাট নোংরা করে ফেলছে এবং শুকুরের শরীরের দূর্গন্ধে পথচারীরা চলাচল করতে গিয়ে তাদের শ্বাসকষ্ট সহ পরিধানকৃত কাপড়-চোপড়ে ময়লা লেগে যাচ্ছে।


শুকুরের এ উপদ্রব থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য বিভিন্ন সামাজিক গণমাধ্যমে তুলে ধরা হলেও পৌরসভার কর্তৃপক্ষের নজরে না পড়ায় এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ হয়ে শেরপুর পৌর এলাকার প্রায় আড়াই’শ জন স্বাক্ষরিত অভিযোগ পত্র গতকাল সোমবার দুপুরে শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button
ভাষা নির্বাচন