ধুনট উপজেলা

প্রিয়ার প্রতিবন্ধী ভাতা মেলেনি এক যুগেও!

বগুড়া জেলার ধুনট উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নে ২ নং ওয়ার্ড এর অন্তরভুক্ত পিরহাটি গ্রামের শাহ পাড়ার অতস সাহা এর প্রথম সন্তান প্রিয়া সাহা। প্রতিবন্ধী জিবনের বারো বছর পার হয়ে গেলেও মেলে’নি একটি প্রিয়ার প্রতিবন্ধী ভাতা কার্ড।

বিজ্ঞাপন

প্রিয়ার জন্মের তিন মাসের মাথাই ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় শারীরিক প্রতিবন্ধী হয় প্রিয়া। প্রিয়াকে নিয়ে তারা বিভিন্ন ডাক্তারের কাছে ঘুরেছে কিন্তু কোন ডাক্তার প্রিয়াকে সুস্থ করতে পারি’নি।প্রিয়া দু পায়ে ভর করে হাঠতে পারে না এবং সে শ্রবণ প্রতিবন্ধী। নিজের কাজতো দুরের কথা সে একা একা খেতেও পারে না।

প্রিয়ার মা বলেন একটি প্রতিবন্ধী ভাতা কার্ডের জন্য সব মেম্বার চেয়ারম্যান এর কাছে গেছি কিন্তু তারা শুধু আসসাস দিয়ে যায়। কিন্তু পরে তারা আর কোন কার্ড দেয়’না। এজন্য এখন আমরা আর কোন চেয়ারম্যান মেম্বার এর কাছে যায় না

প্রিয়র বাবা বলেন ভোটের সময় হলে আমাদের কাছে এসে মাটি নিয়ে কসম করে বলেছে যে আমি নির্বাচিত হলে তোমার মেয়ের জন্য একটা কার্ড করে দিবো কিন্তু ভোট পার হয়ে গেলে কেউ আমাকে কোন কার্ড দেয়না উপরন্ত আমার থেকে প্রতিবন্ধী কার্ডের জন্য টাকা চেয়ে বসে।

প্রতিবন্ধী প্রিয়ার জন্য কোন প্রতিবন্ধী ভাতা বরাদ্দ হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মথুরাপুর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড মেম্বার মো:শাফি বলেন আমি তার সাথে দেখা করেছি। আমার কাছে প্রতিবন্ধী কার্ড আসলে তাকে দেওয়ার ব্যবস্থা করব।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button
ভাষা নির্বাচন