শেরপুর উপজেলা

বগুড়া শেরপুরে স্ত্রী তানিয়াকে হত্যা করে পালিয়েছে ঘাতক স্বামী

বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলায় মধ্যরাতে স্ত্রী তানিয়া খাতুন (২২) কে গলাটিপে হত্যা করে তার স্বামী মেহেদি হাসান (৩০)। হত্যার পর ওড়না দিয়ে পেচিয়ে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলে রেখে পালিয়েছে ঘাতক।
 
প্রায় ৩বছর আগে তানিয়াকে বিয়ে দেয় শেরপুর উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের রহমান নগর এলাকায়। মেহেদির পিতার নাম মো.ফজলুল হক। সেখানে থাকা অবস্থায় তানিয়াকে প্রায় প্রতিদিন শারীরিক নির্যাতন করার কারণে নিজের কাছে আশ্রয় দেন পিতা তোজাম্মেল হক। গত শনিবার সন্ধ্যারাতে সামান্য কথাকাটাকাটি হয় তাদের সংসারে।
 
পরে গত ৩জুন রবিবার রাত ১টার পর ওই হত্যা কান্ডটি অত্যন্ত ঠান্ডা মাথায় সম্পন্ন করে। পারিবারিক সুত্র জানায়, বগুড়া জেলার নন্দিগ্রাম উপজেলার পেংহাজরকি গ্রামের ব্যবসায়ী তোজাম্মেল হক তার একমাত্র মেয়ে তানিয়া খাতুন-জামাই মেহেদি ও শিশুসন্তান রাহুলকে নিয়ে সেখানে ভাড়া বাসায় বসবাস করে।
 
এরপর ভোর রাতে তানিয়ার মৃতদেহ নিজঘরে সিলিং ফ্যানের সাথে অর্ধাংশ ঝুলে থাকতে দেখে পিতা তোজাম্মেল হক। পরে এলাকাবাসী পুলিশকে জানায়।
 
পুলিশ মৃত দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে। এব্যাপারে শেরপুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button