ধুনট উপজেলা

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় চলতি বছর আউশ উৎপাদন হয়েছে রেকর্ড পরিমাণ

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় চলতি বছর আউশ উৎপাদন হয়েছে রেকর্ড পরিমাণ। অসময়ে আউশ চাষে সাফল্য পেয়ে কৃষকের মনে বিরাজ করছে আনন্দের বন্যা।

বিজ্ঞাপন

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আবদুস ছোবহান বলেন, ধুনট উপজেলা বন্যা প্রবন এলাকা। যার কারণে বোরো ধান কাটার পর জমি পতিত রাখতেন কৃষক। কিছু সংখ্যক এলাকায় উঁচু জমিতে কৃষক ধান ব্যতীত অন্য ফসল চাষ করতেন। আউশ ধানের জীবনকাল কম হওয়ায় একই জমিতে ৩-৪টি ফসল চাষ করা সম্ভব হয়।

আড়কাটিয়া গ্রামের কৃষক নূর ইসলাম বলেন, আউশ ধানের জমিতে সেচ দিতে হয়নি। অন্যদিকে সরকারিভাবে বীজ, সার সহায়তা পেয়েছি। ফলে আউশ চাষে নামমাত্র ব্যয় হয়েছে। কিন্তু আউশ চাষ করে বিঘায় ১৮-২০ মণ ফলন পেয়েছি।

আড়কাটিয়া গ্রামের কৃষক ফরিদা পারভিন জানান, বিগত বছরে এই সময়ে জমি পতিত থাকতো। এবার আউশ ধান চাষ করে সাফল্য পেয়েছি। এছাড়া আউশ ধান কাটার পরে ওই জমিতে আগাম রবিশষ্য করার সুযোগ পাওয়া যায়। এজন্য আউশ ধান চাষ করা সবদিক থেকেই সুবিধা।

উপজেলা কৃষি অফিসার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, দীর্ঘদিন যাবত কৃষককে আউশ চাষে উদ্ধুদ্ধ করা হচ্ছে। এছাড়া সরকারিভাবে বীজ, সার ও সেচ সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। এ বছর ১৫০জন কৃষককে আউশ প্রণোদনা পেয়েছেন। এছাড়া মাঠ পর্যায়ে কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা আউশ চাষের জন্য কৃষকদের কারিগরি সহায়তা প্রদান করেছেন। যার কারণে আউশ ধান চাষ ও উৎপাদনে রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button