শিবগঞ্জ উপজেলা

বগুড়ার শিবগঞ্জে শাশুড়ির অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে পুত্রবধুর আত্মহত্যা!

সাইফুল্লাহ মানসুর (বগুড়া লাইভ) :  বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ থানার কিচক ইউনিয়নের উত্তরবেলাই গ্রামের মৃত গোলজার এর স্ত্রীর নিষ্ঠুর নির্যাতন-অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে মৌসুমী নামে এক প্রবাসীর স্ত্রী বিষপান করে আত্মহত্যা করেছে।

ওই গ্রামের মৃত গোলজার হোসেনের ২ছেলে আজিজুল হক সৌদিতে আর মিজানুর রহমান মালয়েশিয়ায় থাকেন। সৌদি প্রবাসী আজিজুল হক প্রায় এক বছর আগে দেশে এসে একই গ্রামের আনোয়ারা বেওয়ার বাড়িতে আশ্রিতা মৃত শহিদুল ইসলামের মেয়ে মোছাঃ মৌসুমীকে বিয়ে করে ঘরে তোলে। বিয়ের পর থেকে মৌসুমী স্বামীর বাড়িতে থাকেন।

এদিকে বিয়ের ১৫দিনের মাথায় আজিজুল আবার সৌদিতে চলে যান। স্বামীর অনুপস্থিতির সুযোগে ডাইনী শাশুড়ি আবেদা বেওয়া কারণে-অকারণে মৌসুমীর সাথে নিষ্ঠুর আচরন করতে থাকে। কিন্তু নিজের মাথাগোজার কোন ঠাঁই নেই ভেবে মৌসুমী মুখবুঝে সহ্য করে চলে শাশুড়ীর সব অত্যাচার।

এর মধ্যে কয়েক বার মৌসুমী তার মা মফেলার কাছে শাশুড়ির অত্যাচারের কথা শুনিয়েছে। কিন্তু মা মফেলা উল্টো মেয়েকে বুঝিয়ে-শুনিয়ে আবার স্বামীর বাড়ি রেখে যান।

মৌসুমীর লাশের পাশে বসে থাকা ছোট বোন, ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে পড়–য়া সাহানাজ খাতুন কান্না জরিত কন্ঠে নিষ্ঠুর নির্যাতনের কাহিনী বলেন, গত বুধবার দুপুরে ভাত রান্না করতে দেরি হওয়ায় শাশুড়ি আবেদা তার উপর নিষ্ঠুর নির্যাতন চালায়। সে সহ্য করতে না পেরে বিষ পান করে। এরপর খবর পেয়ে তারা মৌসুমীকে মমূর্ষঅবস্থায় বগুড়া মেডিকেলে ভর্তি করান। গত ৩দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে শুক্রবার রাতে সে মারা যান।

আনোয়ারা বেওয়া জানান, এরপর মৌসুমীর লাশ রাতেই স্বামীর বাড়িতে আনা হলে দরজার সামনে লাশ দেখে আবেদা বেওয়া বাড়ির মেইন দরজায় তালা দিয়ে পালিয়েছে।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button