সারিয়াকান্দি উপজেলাসোনাতলা উপজেলা

বগুড়াতে কাউনের বাম্পার ফলন

বগুড়ার সারিয়াকান্দি ও সোনাতলায় চলতি মৌসুমে কাউনের বাম্পার ফলন হয়েছে। কাউনের দাম ভালো হওয়ায় চাষিরা লাভের মুখ দেখছে। উৎপাদিত কাউনের বেচাকেনাকে ঘিরে উপজেলার হাট-বাজারগুলো সরগরম হয়ে উঠেছে। পায়েস, পোলাও, ভুনা খিচুড়ি, মলা ও বিস্কুটসহ বিভিন্ন মজাদার খাবারের মূল এই উপকরণকে ঘিরে তাই হাসি ফুটেছে কৃষকদের মুখে।

বিজ্ঞাপন

বগুড়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানিয়েছে, জেলার দুই উপজেলায় কাউন চাষ হয়ে থাকে। খরচ কম হওয়ায় এ অঞ্চলের চাষিরা কাউন চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। এ বছর জেলার ১৬৩২ হেক্টর জমিতে কাউন চাষ হয়েছে। এর মধ্যে সারিয়াকান্দির চরাঞ্চলেই জমি ১৬শ হেক্টর। বাকি মাত্র ৩২ হেক্টর কাউন চাষ হয়েছে সোনাতলায়।

সারিয়াকান্দি উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিস সূত্রে জানা গেছে, সারিয়াকান্দিতে গত বছর ১ হাজার ৫৮০ হেক্টর জমিতে কাউন চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল। এ বছর চাষ হয়েছে ১৬শ হেক্টর জমিতে। অগ্রহায়ণ থেকে মাঘ মাস পর্যন্ত বীজ বপন করা হয় এবং বৈশাখ ও জ্যৈষ্ঠ মাসে কাউন কাটাই-মাড়াই করা হয়। চরাঞ্চলের উর্বর পলি জমিতে বেড়ে উঠতে থাকে কাউন গাছ।

উপজেলার চালুয়াবাড়ী চরের কৃষক মালেক হোসেন, পান্তাপাড়া চরের বাছেদ মিয়া, বুদে প্রামানিক জানান, জমিতে চাষ, বীজ বপন, নিড়ানি থেকে শুরু করে কাউন মাড়াই পর্যন্ত এবার প্রতিবিঘা জমিতে আড়াই হাজার থেকে তিন হাজার টাকার মতো খরচ হয়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শাহাদুজ্জামান বলেন, জমিতে বন্যার কারণে পলি ও কাউনের শীষে কোনো রোগ-বালাই বা পোকামাকড় না ধরায় বাম্পার ফলন হয়েছে। ফলন বাড়ানোর জন্য কৃষি অফিস থেকে কৃষকদের বিভিন্ন পরামর্শ দেওয়া হয়। যমুনা ও বাঙালি নদীর চরাঞ্চলে বাম্পার ফলন হওয়ায় কাউন চাষিদের মুখে হাসি ফুটেছে।

 

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button