বগুড়া সদর উপজেলা

বগুড়ায় থাকছে না পুরানো আমলের ঝুঁকিপূর্ণ ২৮ টি বেইলি সেতু

বগুড়া লাইভঃ

বিজ্ঞাপন

গত ৫ এপ্রিল বগুড়ার ধুনট উপজেলার আঞ্চলিক সড়কের মাঠপাড়া গাড়ামারা খালের ওপর নির্মিত বেইলি ব্রিজটি পুরোপুরি ভেঙে পড়ে। এতে করে বগুড়ার সঙ্গে শেরপুর উপজেলা, ধুনট উপজেলার সোনাহাটা, মথুরাপুর, জোড়শিমুল, গোসাইবাড়ী, ঢেকুরিয়া ও কাজীপুর এবং রায়গঞ্জ উপজেলায় সরাসরি যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে পড়ে।

বিজ্ঞাপন

তারই ধারাবাহিকতায় বগুড়া জেলায় চলাচলে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে ওঠা ২৮টি বেইলি সেতু পর্যায়ক্রমে তুলে ফেলা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ৪টি বেইলি সেতু সরিয়ে আরসিসি পিসি-গার্ডার সেতু নির্মাণ কাজও শুরু করেছে বগুড়া সড়ক ও জনপথ বিভাগ।

জানা গেছে, বগুড়া জেলায় প্রায় ছোটবড়, শাখা-প্রশাখা, খালবিল রয়েছে প্রায় অর্ধশত। এইসব নদী-নালা ও খাল-বিলের ওপর আশির দশকে চলাচলের জন্য নির্মাণ করা হয় লৌহ সেতু বা বেইলি সেতু। দীর্ঘদিন ব্যবহারে এই সেতুগুলো এখন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। সেতুগুলোর পাটাতন থেকে শুরু করে বিভিন্ন অংশ মাঝে মধ্যেই খুলে পড়ছে। এ কারণে ব্রিজ থাকার পরও সেটি সাধারণ পথচারীরা ব্যবহার করতে পারছে না। আবার একই ব্রিজ বারবার জোড়াতালি দিয়ে মেরামত করার পর সাধারণ মানুষের জন্য চলাচলের উপযোগী করা হলেও যানবাহন চলাচলে তা মৃত্যু ঝুঁকিতে পরিণত হয়েছে। বগুড়ার শেরপুর, ধুনট, গাবতলী, সারিয়াকান্দি, সোনাতলা উপজেলাসহ জেলায় ২৮টি বেইলি সেতুই ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে আছে।

বগুড়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী (সওজ) মো আশরাফুজ্জামান জানান, বগুড়ায় আশির দশকে নির্মাণ করা এই সেতুগুলোর বেশিরভাগই ঝুঁকিপূর্ণ, এবং জেলায় ২৮টি বেইলি সেতু সরিয়ে সেখানে আরসিসি গার্ডার সেতু নির্মাণ করার উদ্যোগ নিয়েছে বর্তমান সরকার।

এই ব্রিজগুলো পর্যায়ক্রমে নির্মাণ করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে জেলার গাবতলী, সারিয়াকান্দি সড়কে ৩টি ব্রিজ ও একটি কালভার্ট নির্মাণ করা হচ্ছে। আশা করা হচ্ছে আগামী জুনের মধ্যে ৩টি ব্রিজের কাজ শেষ হচ্ছে। এবং আস্তে আস্তে সব ব্রিজ এর কাজ সমাপ্ত করা হবে।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button