বগুড়ার ইতিহাস

প্যালেস মিউজিয়াম

নবাব মোহাম্মদ আলীর বাড়িকে কেন্দ্র করে প্যালেস মিউজিয়াম তৈরি করা হয়। অনেক সুন্দর মনোরম পরিবেশ। ছোটদের জন্য বিনোদনের সুব্যবস্থা আছে। ভেবে অনেক খারাপ লাগে যে এখন আর ছোটদের নিয়ে যাওয়ার অবস্থা নেই। পরিবেশ অনেক খারাপ হয়ে গিয়েছে। মিউজিয়াম এর মধ্যে অনেক জিনিসই নেই। সব কিছুতে ময়লা জমছে। কাচের জিনিস গুলো ভেঙে গিয়েছে। অনেক চিত্রই আর দেখা মেলে না।

বিজ্ঞাপন

     


মিউজিয়াম এ যে খাবার দোকান আছে সেখানে খাবার এর মূল্য অনেক বেশি। যদি এ অবস্থাই থাকে তাহলে শিশুদের বিনোদনের জায়গা কমে যাবে।শিশুরা বগুড়া সম্পর্কে জানবে না। প্যালেস মিউজিয়ামকে আগের মত করতে পারলে অনেক ভাল হবে। এভাবে যদি বিনোদনের জায়গা শেষ হয় তাহলে শিশুদের মেধা বিকাশ কেমন করে হবে? শিশুদের বিনোদনের জায়গা আছে কিন্তু সেখানে শিশুদের নিয়ে যাওয়ার কোনো পরিবেশ নেই।
মিউজিয়ামের চিরিয়াখানাতে তেমন কোন প্রাণি নেই। বানর আছে তার সংখ্যাও অল্প। অন্য যা প্রাণি ছিল তা আর নেই।যথেষ্ট তদারককারী থাকারপরও নেই কোন তদারকি… থ্রীডি দেখানোর ব্যবস্থা থাকার পরও তা অনেক দিন অচল হয়ে আছে..।
মিউজিয়ামের দায়িত্বে যারা আছেন তাদেরকে আরো বেশি যত্নশীল হওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।

এ বিভাগের অন্য খবর

Back to top button
ভাষা নির্বাচন