খেলাধুলা

শীর্ষ আয়ে লিওনেল মেসি

বার্সেলোনা থাকবেন না বলে গত কয়েক সপ্তাহ ঝামেলায় মধ্যে ছিলেন লিওনেল মেসি। এই তো কয়েকদিন আগেই এ তারকা নিজেই সব সমস্যার সমাধান টেনে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কাতালান ক্লাবটিতে আরেক মৌসুম খেলার। এরইমধ্যে ন্যু-ক্যাম্পের ক্লাবটির অনুশীলনে ফিরেছেন তিনি। খেলেছেন একটি প্রস্তুতি ম্যাচও। সব মিলিয়ে বলা যায় কিং লিও লা লিগার সেরা ক্লাবের হয়ে এ মৌসুমে নিজের সেরাটা দিতে তৈরি। তার আগে অবশ্য মঙ্গলবার তিনি পেলেন সুখবর। ফোর্বস সাময়িকীর করা শীর্ষ আয়ের ফুটবলারদের সর্বশেষ প্রকাশ করা তালিকা এ তারকা রয়েছেন সবার ওপরে। এরপরই রয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। এর আগেরবার যে তালিকাটি ফোর্বস প্রকাশ করেছিল, সেখানে সবার ওপরে ছিলেন রোনালদো।

গত এক বছরে বেতন ও এন্ডোর্সমেন্ট মিলিয়ে মেসির আয় ১২ কোটি ৬০ লাখ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যেটা ১০৬৮ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। দ্বিতীয় স্থানে আছেন ১১ কোটি ৭০ লাখ মার্কিন ডলার আয় নিয়ে আছেন রোনালদো। বাংলাদেশি মুদ্রায় জুভেন্টাসের পর্তুগিজ ফরোয়ার্ডের আয় ৯৯২ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। এদিক এ তালিকার তৃতীয় স্থানে আছেন নেইমার। সর্বেশেষ ১২ মাসে বেতন ও এন্ডোর্সমেন্ট থেকে তার আয় ৯ কোটি ৬০ লাখ ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৮১৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা। চতুর্থ স্থানে আছেন কিলিয়ান এমবাপে। সবু মিলিয়ে গত ১২ মাসে এ তারকা ফরোয়ার্ডের আয় ৪ কোটি ২০ লাখ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় ৩৫৬ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

এদিকে ফোর্বসের আয়ের সেরা দশে জায়গা করে নিয়েছেন, মো সালাহ, পল পগবা, আতোয়ান গ্রিজমান, গ্যারেথ বেল, রবার্ত লেভানডফস্কি ও ডেভিড ডি গিয়া।

৩ কোটি ৭০ লাখ মার্কিন ডলার আয় নিয়ে সালাহ আছেন ফোবর্সের সেরা আয়ের পঞ্চম স্থানে। ষষ্ঠ স্থানে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ফরাসি মিডফিল্ডার পল পগবার আয় ৩ কোটি ৪০ লাখ ডলার। তাঁর চেয়ে মাত্র ১০ লাখ ডলার কম আয় করে সপ্তম স্থানে গ্রিজমান। এদিকে ২ কোটি ৯০ লাখ ডলার আয় নিয়ে ফোর্বসের তালিকায় বেল আছেন অষ্টম স্থানে। গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ ও জার্মান বুন্দেসলিগার সর্বোচ্চ গোলদাতা লেভানডফস্কি আছেন নবম স্থানে। বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ স্ট্রাইকারের আয় ২ কোটি ৮০ লাখ ডলার। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের গোলকিপার ডি গিয়া লেভার চেয়ে ১০ লাখ ডলার কম আয় নিয়ে আছেন দশম স্থানে।

সম্পর্কৃত পোস্ট

Close