বিনোদন

ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা মোশাররফ করিম এর জন্মদিন আজ

মোশাররফ করিম অভিনয় জগতের এক অধ্যাবসায়ী অভিনেতা। ১৯৭১ সালের আজকের এই দিনে দর্শকপ্রিয় অভিনেতা মোশাররফ করিম জন্মগ্রহণ করেন। মোশারফ করিমের পৈত্রিক বাড়ি বরিশাল।

একুশ শতাব্দীর প্রথম দশকে টেলিভিশনের পর্দায় ব্যতিক্রমী ও শক্তিশালী অভিনয়শিল্পী হিসাবে আবির্ভূত হন মোশাররফ করিম। এসএসসি পাস করে ১৯৮৬ সালে ঢাকার অন্যতম নাট্যসংগঠন ‘নাট্যকেন্দ্র’-এ যুক্ত হন অভিনয়ের টানে। দলটির ‘বিচ্ছু’ ও ‘প্রতিসরণ’ নাটকে অভিনয় করেন। অভিনয়ের পদচারণ শুরু করেন তিনি থিয়েটার মঞ্চে।

১৯৯৯ সালে এক পর্বের নাটক অতিথি-এ অভিনয়ের মাধ্যমে ছোট পর্দায় আগমন করেন। পরবর্তীতে বেশকিছু নাটকে অভিনয় করলেও জনপ্রিয়তা পান ২০০৪ সালে ‘ক্যারাম’ নামের একটি টিভি নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে।

২০০৮ সালে তিনি দেয়াল আলমারি নাটকে অভিনয় করেন। এই নাটকের জন্য তিনি মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার-এ সমালোচক শাখায় সেরা টিভি অভিনয়শিল্পী (পুরুষ) বিভাগে পুরস্কৃত হন। রাজনৈতিক টানাপোড়েন নিয়ে নির্মান করা মোস্তফা সরোয়ার ফারুকীর ৪২০ নাটকে মন্টু চরিত্রের মোশারফ করিমের অভিনয় সর্বমহলে করে দ্যুতি ছড়ায়।

এছাড়াও সালাউদ্দিন লাভলুর ধারাবাহিক ‘ভবের হাট’ নাটকে অভিনয় করে দারুণ দর্শক প্রিয়তা পান। পিক পকেট, লস প্রজেক্ট থেকে শুরু করে এফ এন এফ, হাউজফুলসহ বহু ধারাবাহিকে সমান সাবলীল মোশাররফ করিমকে সবিস্ময়ে আবিষ্কার করেছেন এ দেশের ছোটপর্দার দর্শক। এক ঘন্টার নাটক, টেলিফিল্ম আর ধারাবাহিকে বাংলা নাটকের ভরসার নাম হয় উঠেন তিনি। এখন পর্যন্ত প্রায় ৮০০ এর অধিক নাটকে অভিনয় করেছেন।

বর্তমানে চলচ্চিত্রেও অভিনয় করে চলেছেন সমানতালে। জয়যাত্রা’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে শুরু করেন বড় পর্দায় এরপর একে একে ২০০৬ সালে তৌকীর আহমেদের ‘রূপকথার গল্পে’,২০০৯ সালে তিনি মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার, ২০১১ সালে প্রজাপতি ছায়াছবিতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন,২০১৩ সালে টেলিভিশন ছায়াছবিতে অভিনয় করেন।

জালালের গল্প চলচ্চিত্রের জন্য তিনি আভাঙ্কা চলচ্চিত্র উৎসবের ১৯তম আসরে শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কার অর্জন করেন। জন্মদিন অনেক অনেক শুভেচ্ছা পাচ্ছেন এই অভিনেতা।

Back to top button