শিরোনাম:
জাতীয়

কুরবানির পশুর বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ও চামড়া সংরক্ষণ এ করনীয়

আগামী শনিবার অনুষ্ঠিত হবে মুসলিম উম্মার সর্বোচ্চ ধর্মীয় অনুষ্ঠান পবিত্র ইদুল আজহা। কিন্তু এবারের ঈদুল আজহার প্রেক্ষাপট কিন্তু অন্য বছরের তুলনায় একটু আলাদা। কারণ এবারের কুরবানির ঈদ এমন এক সময় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে; যখন বাংলাদেশসহ বিশ্ব করোনাভাইরাস মহামারীর কবলে আক্রান্ত।

উক্ত পরিস্থিতি তে পশু কোরবানির সময় একজন থেকে আরেকজনে করোনাভাইরাস যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সেজন্যও অতিরিক্ত সাবধানতা অবলম্বন করে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। কুরবানির পশুর বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় কিছু কিছু বিষয় আমাদের অবশ্যই পালন করা উচিত। যেমনঃ

১.যত্রতত্র পশু কুরবানি থেকে বিরত থাকুন,নির্ধারিত স্থানে পশু কুরবানি করুন
২.কুরবানির পশু জবাইয়ের পূর্বে গর্ত করে গর্তের মধ্যে রক্তসহ অনন্য বর্জ্য রেখে মাটি চাপা দিন।
৩.পশু কুরবানির স্থান পানি দিয়ে ভালোভাবে পরিস্কার করুন।
৪.বর্জ্য অপসারণে সিটি কর্পোরেশন /ইউনিয়ন পরিষদেকে সহয়তা করুন।
৫.কুরবানির মাংস বিতরণে পরিবেশ সম্মত ব্যাগ বা পাত্র ব্যবহার করুন।

কোরবানির পশুর চামড়া ছাড়ানোর জন্য সঠিক পদ্ধতি অনুসরণ করা উচিত।কোরবানির দিন সকালে পশুকে পর্যাপ্ত পরিষ্কার পানি পান করতে দিতে হবে। এতে জবাইয়ের পর চামড়া ছাড়ানো সহজ হয়। এবং চামড়া সঠিক ভাবে সংরক্ষণ এর জন্য কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে,তা হলেঃ
১.চামড়া ছাড়ানের পর সমস্ত রক্ত, চর্বি, ময়লা ইত্যাদি পরিস্কার করে নিতে হবে।
২.গরুর চামরা সংরক্ষণ এর ক্ষেত্রে চামড়ার ওজনের শতকরা ২৫-৩০ ভাগ লবন প্রয়োগ করতে হবে এবং ছাগলের ক্ষেত্রে ৩০-৩৫ ভাগ লবন প্রয়োগ করতে হবে।

সম্পর্কৃত পোস্ট

Close