ফিচার

ফোর্বস ম্যাগাজিনে সেরাদের তালিকায় বগুড়ার মেয়ে ইশরাত করিম

আবুল বাশার মিরাজ: ৩০ বছর বা তার কম বয়সী সামাজিক উদোক্তাদের নিয়ে ফোর্বস ম্যাগাজিনের এশিয়ার সেরা ৩০ জনের তালিকায় ঠাঁই করে নিয়েছেন বাংলাদেশী তরুনী ইশরাত করিম। বৃহস্পতিবার মার্কিন সাময়িকীটি এটি প্রকাশ করে। বগুড়ায় জন্ম নেওয়া ২৯ বছর বয়সী এই তরুণী দেশে সামাজিক স্বেচ্ছাসেবি সংগঠন ‘আমাল ফাউন্ডেশন’ প্রতিষ্ঠান করেছেন।

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও বৃত্তি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডো ইউনিভার্সিটিতে সামাজিক ব্যবসা’ নিয়ে মাস্টার্স করেছেন। লেখাপড়ার পাশাপাশি তিনি অবসরে পার্ট টাইম চাকরি করেছেন বিশ্বখ্যাত দাতব্য সংস্থা ‘বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন’-এ। পরবর্তীতে আমেরিকায় বেশ কিছু দামী চাকুরির সুযোগ ছেড়ে দেশের প্রতি দায়বদ্ধতায় দেশে চলে আসেন। দেশে এসেই ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠাতা করেন ‘আমাল ফাউন্ডেশন’।

ফোর্বস ম্যাগাজিনে স্থান পাওয়ার অনুভূতির কথা জানতে চাইলে ইশরাত করিম বলেন, ফোর্বস ম্যাগাজিনে স্থান পাওয়া আমার জন্য সত্যিই অনেক গর্বের বিষয়। সকলের সহযোগিতা না থাকলে এমন অর্জন কখনই সম্ভব হতো না। আমি আমার পরিবার, বন্ধু-বান্ধব, সংগঠন, সহযোগি সবাইকে ধন্যবাদ দিতে চাই, এ আনন্দ আসলে আমাদের সবার।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আমাল ফাউন্ডেশন নামের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটি প্রত্যন্ত গ্রামগঞ্জ ও শহরের গরীব, অসহায় মানুষের শারিরীক ও মানসিক স্বাস্থ্য, শিক্ষাগত উন্নয়ন, নারীর ক্ষমতায়ন, দুর্যোগে-দুভোগে কাজ করে থাকে। বস্তির কিশোরী-তরুণীদের শেখালেন মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষার গুরুত্ব, তাদের যৌন নিপীড়ন থেকে বাঁচার জন্য যৌন হয়রানি প্রতিরোধে সামাজিক-মানসিক কাউন্সিলিং করিয়েছেন। চরের মেয়েদের স্বাবলম্বী করে তোলার মাধ্যমে বাল্যবিবাহ রোধ ও যৌতুকের অভিশাপের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে।

ইশরাত জানান, তার সংগঠনটি জাতীয় সংকটে দেশের মানুষের পাশে দাঁড়ায়। ২০১৭ সালের নভেম্বরে রোহিঙ্গা শরনার্থী শিবিগুলোতে তারা ত্রাণ বিলিয়েছেন। তাদের আরেকটি উদ্যোগ হলো আদর্শ গ্রাম নির্মাণ মানুষকে দিয়েছেন শস্যবীজ, সোলার বাতি। তাদের এই কাজের সময়গুলোতে ফ্রি স্বাস্থ্য সেবা ও ওষুধ দেওয়া হয়েছে। যশোর সদরের পুলেরহাট ইউনিয়নের আভা লিমিটেডের সঙ্গে যৌথভাবে তারা ‘ডাক্তারবাড়ি’ নামের স্বাস্থ্যসেবা প্রকল্প চালু করেছেন। তাতে স্বল্প খরচে মানুষের চিকিৎসা দেওয়া হয়। শনপচা চরে তাদের একটি স্কুল আছে। এটিই শনপচার একমাত্র স্কুল। আইপিডিসি ফিনান্স লিমিটেড ও আমাল ফাউন্ডেশন স্কুলটি বালিয়েছে, চালাচ্ছে। স্কুলে ছাত্রছাত্রীরা বিনা পয়সায় বই, খাতা, কলম পায়। স্কুলের মতো ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে তারা চরের একমাত্র কমিউনিটি স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র চালু করেছেন। সপ্তাহে দুবার বাইরে থেকে ডাক্তার এসে বসেন। রোগীদের ফ্রি ওষুধ দেন। নারীদের নিজের ও পরিবারের স্বাস্থ্য বিষয়ে জানাতে একজন নারী প্রশিক্ষকও আছেন। এছাড়াও, বগুড়া, চাঁদপুর, সিরাজগঞ্জ, ময়মনসিংহ, সিলেট, টেকনাফের প্রত্যন্ত গ্রাম ও চরে ‘আমাল ফাউন্ডেশন’ ২০১৮ সাল থেকে বিশুদ্ধ পানীয়ের জন্য গভীর নলকূপ বসিয়ে দিচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে ৪০টি গভীর নলকূপ এসব জায়গায় বসানো হয়েছে।

একজন নারী হিসেবে এত কাজ করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নারী হওয়ায় অনেকে তাকে বাঁকা চোখে দেখেন, অনেকে কথা শোনাতে ভুল করেন না। কিন্তু আমি এসব বাধা কাটিয়ে এগিয়ে যেতে চাই। আমরা ২০১৮ সালে ফাউন্ডেশন থেকে তারা ‘অ্যাজোয়া’ নামের একটি নারী ব্র্যান্ড চালু করেছি। তাতে শনপচার নারীদের তৈরি গায়ে মাখার সাবান, গ্রামের শাড়ি, গহনা সারা বিশ্বে অনলাইনে বিক্রি করা হয়।

উল্লেখ্য, এর আগে নিজের ও প্রতিষ্ঠানের এই কাজগুলোর সুবাদে ইশরাত ইয়ুথ আইকন ২০১৮, ওয়াইএসএসই সোশ্যাল ইমপ্যাক্ট অ্যাওয়ার্ড, জিটিএ গ্লোবাল অ্যাওয়ার্ড, জেকোনো ক্যাটালিষ্ট ফেলোশিপ, এমিকোন প্রভৃতি পুরষ্কার পেয়েছেন।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button
error: Content is protected !!