উপজেলাকাহালু উপজেলা

একজন নিবেদিত উপজেলা চেয়ারম্যান সুরুজ

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় বিশ্ব যখন বেসামাল তখন নিজ উপজেলার মানুষকে এই মহামারির প্রাদুর্ভাব থেকে বাঁচাতে তার এলাকার গ্রামগঞ্জের হাটবাজার সহ জনসমাগম হয় এমন স্থানগুলোতে নিজে দাড়িয়ে থেকে হাত জোর করে মানুষকে নিজ ঘরে আবদ্ধ থাকার অনুরোধ জানিয়ে বেড়াচ্ছেন বগুড়ার কাহালু উপজেলার সদ্য নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান আল হাসিবুল হাসান কবিরাজ সুরুজ।

বাবা তার উপজেলারই আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পরপর দু’বার নির্বাচিত পৌরসভার মেয়র। এরপর বাবার অনুপ্রেরণা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে ছাত্র রাজ রাজনীতিতে যোগ দান করেন। এরপর বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক। ২০১৯ সালের উপজেলা নির্বাচনে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে ইতিমধ্যেই মন জয় করে নিয়েছেন অত্র উপজেলার খেটে খাওয়া দিন মজুর থেকে শুরু করে সব স্তরের জনমানুষের। সেই সাথে তিনি বাংলাদেশের সর্বকনিষ্ঠ নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান।

তার এলাকার মানুষকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে একজন উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে এলাকার মানুষকে সচেতন করতে দিন-রাত ছুটে বেড়াচ্ছেন উপজেলার এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তের মানুষের কাছে।

সম্প্রতি তাকে কাহালু উপজেলার পাইকর বাজারে দু’হাত জোড় করে মানুষকে ঘর থেকে বের না হওয়ার অনুরোধ করতে দেখা গিয়েছে। তার এমন সৌহার্দপূর্ণ আচরণে মুগ্ধ হয়েছেন সকলেই।

এ প্রসঙ্গে বগুড়া লাইভের সাথে তার কথা হলে তিনি বলেন, “এসব মানুষের ভোটের কারণেই আমি আজ উপজেলা চেয়ারম্যান হয়েছি। এখন তারাই যদি না বাঁচে তাহলে আমি কী জবাব দিব? এটা আমার কর্তব্য। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত আমার সচেতনতা প্রচার অব্যাহত থাকবে।”

এ সচেতনতা বৃদ্ধি সহ অন্যন্য দিক লক্ষ রেখে উপজেলা চেয়ারম্যানের ব্যবহারকৃত গাড়ির সাথে ফিক্সড মাইক যুক্ত থাকতেও দেখা গিয়েছে।

এলাকার মানুষরা জানিয়েছেন, উপজেলা চেয়ারম্যান সুরুজ আমাদের সাথে সবসময় নম্র ও সহযোগীতাপূর্ণ ব্যবহার করেছেন। সেই সাথে দীর্ঘায়ু কামনা করেছেন তার এলাকার প্রবীনরা।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button
error: Content is protected !!