উপজেলাবগুড়া সদর উপজেলাসোনাতলা উপজেলা

ভুট্টা চাষে আগ্রহ বাড়ছে বগুড়ার চাষিদের

চলতি মৌসুমে বগুড়ায় বিপুল সংখ্যক জমিতে ভুট্টার চাষ করা হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবং সেই সাথে এই অঞ্চলের মাটি ভুট্টা চাষের উপযোগী হওয়ায় ভুট্টার চাষে ব্যাপক ফলন পেয়েছেন কৃষকরা। কোন প্রকার প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে ভুট্টার চাষে লাভের আশা করছেন চাষিরা।

জানা যায়, আগের মৌসুমগুলোতে ধান চাষ করে লোকসান হওয়ায় কৃষকরা বিকল্প ফসল চাষের দিকে ঝুঁকে পড়েন। এরই ধারাবাহিকতায় এই মৌসুমে বিপুল পরিমাণ জমিতে ভুট্টার চাষ করেছেন স্থানীয় কৃষকরা। এখন পর্যন্ত যে ফলন দেখা গেছে তাতে লাভের আশায় রয়েছেন চাষিরা।

এই বছর বগুড়া জেলার সোনাতলায় চরের প্রায় ২০০ হেক্টর জমিতে ভুট্টার চাষ করেছেন কৃষকরা। ভুট্টা চাষে অন্যান্য ফসলের তুলনায় কম পরিশ্রম ও খরচ কম লাগে। তাই দিন দিন এ অঞ্চলের কৃষকরা ভুট্টা চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছেন। আগে খুব কম সংখ্যক জমিতে ভুট্টার চাষ করা হতো এখানে। তবে ধানের দাম কম পাওয়াতে এ বছর অনেক কৃষক ভুট্টার চাষ করেছেন।

সোনাতলার কৃষি অফিস থেকে জানা যায়, চলতি মৌসুমে এই উপজেলায় ভুট্টার চাষ উল্লেখযোগ্যহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এ বছর ভুট্টার অন্যান্য জাতের তুলয়ায় সুপার শাহিন-১৭৬০ জাতের ভুট্টার চাষ হয়েছে বেশি। এখানকার আবহাওয়া ভুট্টার চাষের জন্য বেশ উপযোগী। তাই ব্যাপক হারে ফলন হয়েছে।

স্থানীয় চাষিরা জানান, আগের বছরগুলোতে আমাদের অঞ্চলে ভুট্টার চাষ তেমন একটা দেখা যেত না। আগে আমরা ধানের চাষ করে জিবিকা নির্বাহ করতাম। ধান চাষে কয়েকবার লোকসান করার পর আমরা ধান চাষের প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলি। এরপর সিদ্ধান্ত নেই কোন ফসল চাষ করবো। আমাদের এলাকার আবহাওয়া অনুযায়ী ভুট্টার ফলন ভাল হয়। তাই ধানের পরিবর্তে ভুট্টার চাষ শুরু করি। এখন পর্যন্ত ফলন বেশ ভালো হয়েছে। আশা করছি আমরা বেশ লাভবান হব।

উপজেলার কৃষি অফিসার মাসুদ আহমেদ বলেন, এই অঞ্চলের কৃষকরা ভুট্টার চাষ করে বেশ ভালো ফলন পেয়েছেন। আবহাওয়া এই অঞ্চলে ভুট্টার চাষের জন্য বেশ উপযোগী। আমাদের পক্ষ থেকে ভুট্টা চাষিদের বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। আশা করছি আবহাওয়া ঠিক থাকলে কৃষকরা লাভবান হবেন।

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button
error: Content is protected !!