বগুড়ার ইতিহাস

বগুড়া নামকরা রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক মরহুম সিরাজুল হক তালুকদার সাহেবের জীবন চরিত



রাজনীতিবিদ ও সংসদ সদস্য মরহুম সিরাজুল হক তালুকদার সাহেব ১৯১৯ খ্রিস্টাব্দে বগুড়া জেলার তৎকালীন সারিয়াকান্দি (বর্তমান গাবতলি) উপজেলাধীন কলাকোপা গ্রামের বিশিষ্ট জোতদার পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা মরহুম খোশ মাহমুদ তালুকদার বিখ্যাত জোতদার ছিলেন এবং মাতা অতেবজান বিবি গৃহিনী ছিলেন।


মরহুম সিরাজুল হক তালুকদার সাহেব জীবন শৈশবকালে নিজগ্রামে অতিবাহিত করেন। তিনি নিজ গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির মাধ্যমে তিনি তাহাঁর শিক্ষাজীবন শুরু করেন। পরবর্তী সময়ে তিনি পার্শ্ববর্তী চাঁচাই তারা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি হন এবং ম্যাট্রিকুলেশন পরীক্ষার পূর্বেই শিক্ষাজীবনের ইতি ঘটান।
তিনি সারাজীবন রাজনীতি ও সমাজ কল্যানমুলক কর্মকান্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। রাজনীতিতে তিনি মুসলিম লীগ ধারার অনুসারী ছিলেন। যৌবনে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠা আন্দোলনের নিষ্ঠাবান কর্মী ছিলেন। স্বাধীনতা যুদ্ধের পূর্ব সময় পর্যন্ত তিনি মুসলিম লীগ ধারার রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন।


মরহুম সিরাজুল হক তালুকদার সাহেব ১৯৬২ খ্রিস্টাব্দে মুসলিম লীগের (কনভেনশনপন্থী) মনোনীত প্রার্থী হিসেবে তৎকালীন পূর্বপাকিস্থান প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য বা এম.পি.এ নির্বাচিত হন। পরবর্তী সময়ে মরহুম প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলে যোগদান করেন। ১৯৭৯খ্রিস্টাব্দে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে গাবতলি-সারিয়াকান্দি এলাকার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।


তিনি নিজ এলাকা গাবতলী উপজেলার বালিয়াদিঘী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বগুড়া সদর পৌরসভার চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হন। তাছারা তিনি দুই মেয়াদে বগুড়া জেলাবোর্ডের সদস্য নির্বাচিত হন।
সিরাজুল হক তালুকদার সাহেব ২১ সেপ্টেম্বর ১৯৮১ খ্রিস্টাব্দে তৎকালীন পিজি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃস্বাস ত্যাগ করেন।


মরহুম সিরাজুল হক তালুকদার সাহেবের সন্তানগনের মধ্য জনাব মো: মোজাম্মেল হক তালুকদার (দৈনিক করতোয়া এবং দৈনিক উত্তরকোন পত্রিকার সম্পাদক) এবং জনাব মো: হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু (বগুড়া-৬ আসনে একাধিকবার নির্বাচিত প্রাক্তন সংসদ সদস্য)।


তথ্যসংগ্রহে: গোলাম জাকারিয়া কনক

সম্পর্কিত পোস্ট

Back to top button